২৪ ঘণ্টায় ১৭১২ জন আক্রান্ত : মশার প্রজননস্থল ও লার্ভা ধ্বংস না করলে উপদ্রব বাড়বে

image

একটি মশা প্রতি মাসে ১৮০০ থেকে ২২৫০টি ডিম পাড়ে, মশার লার্ভায় কীটনাশক না দিলে কাজ হবে না : বিশেষজ্ঞ

নতুন আতঙ্ক অ্যাডিস মশা। এর প্রজননস্থল ও লার্ভা ধ্বংস না করলে উপদ্রব বাড়তে থাকে। একটি স্ত্রী মশা জীবনকালে ১৮শ’ থেকে ২২৫০টি ডিম পাড়ে। আর ডিম পাড়ার জন্য মানুষকে কামড়ানো ও রক্ত পান করতে হয়। ওষুধ ছিটালে মশা কিছুক্ষণের জন্য নিস্ক্রিয় বা প্যারালাইসিসের মতো হয়ে পড়ে বা কিছু মশা মারা যায়। মশার লার্ভা সাধারণত এক ফিট থেকে দেড় ফিট পানিতে থাকে।

এ অবস্থা থেকে উত্তরণে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিকল্প নেই। ঘরবাড়ি ও আঙিনা সব সময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিহের কীটতত্ব বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. মহির উদ্দিন ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের কীটতত্ব বিশেষজ্ঞ রেজাউল করিম খানের মাধ্যমে এসব তথ্য জানা গেছে। মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, অ্যাডিস মশার কামড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৭১২ জন আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। হাসপাতালে সিট না পেয়ে অনেকেই বাসাবাড়ি থেকে ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসা করাচ্ছেন। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুজ্বরে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১৯,৫১৩ জন। এখনো হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫ হাজার ৮৩৮ জন। সরকারি হিসাবে এসব তথ্য জানা গেলেও বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা আরও অনেক বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যা নিয়ে গড়মিল রয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) আরও ২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এরমধ্যে একজন ভৈরবে। তার নাম মো. হামজা ও আরেকজন ঢাকায় ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে একজন মারা গেছেন। ঢাকা মেডিকেলে ২২২, মিটফোর্ডে ৮১, শিশু হাসপাতালে ২৫, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৯৬, হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ৪৩, বারডেম হাসপাতালে ৩২, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩০, পুলিশ হাসপাতালে ৩৯, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮৬, বিজিবি হাসপাতালে ৮, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ৪৩, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৫৫, বেসরকারি ক্লিনিক ও হাসপাতালে ৩৮৭ জন। ঢাকা শহরে মোট ১১৪৭ জন। বিভিন্ন বিভাগে ৫৬২ জন আক্রান্ত। এরমধ্যে ঢাকায় (শহর ব্যতিত) ১৪৫ জন, চট্রগ্রাম বিভাগে ৯৪ জন, খুলনায় ৭৬ জন, রংপুর বিভাগে ৩৩ জন, রাজশাহীতে ৫৮ জন, বরিশালে ৬৩ জন, সিলেট বিভাগে ৩১ জন, ময়মনসিংহে ৬২ জন। সর্বমোট দেশব্যাপী গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭৬২ জন আক্রান্ত হয়েছে। এরমধ্যে ৩ জন মারাত্মক ডেঙ্গু হেমোরোজিকে আক্রান্ত।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহের কীটতত্ব বিভাগের প্রফেসর ড. মহির উদ্দিন সংবাদকে বলেন, অ্যাডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গুজ্বর, চিকুনগুনিয়া ও ইউলো ফিভারও হয়। মশা দমন করতে হলে ফুলের টব, ডাবের খোসা, টায়ার-টিউবে যাতে পানি না জমে থাকে। সব সময় পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। বাসা বাড়িতে কোন স্থানে পানি জমিয়ে রাখা যাবে না। এমনকি গ্লাসে যাতে পানি জমিয়ে না রাখা হয় তার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।

মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদফতরের সিনিয়র কীটতত্ব বিশেষজ্ঞ রেজাউল করিম খান বলেন, স্ত্রী মশা ২ দিন পরপর ডিম পাড়ে। এ মশা বাঁচে প্রায় এক মাস। এক মাসে একটি মশা ১৫ বার ডিম পাড়ে। প্রতিবার ১২০ থেকে ১৫০টি ডিম পাড়ে। ডিম পাড়ার জন্য রক্ত পান করতে হয়। এক দিন একটি অ্যাডিস মশা কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ জনকে কামড়ায়। আর অ্যাডিস মশা ৫০০ মিটার পর্যন্ত উড়তে পারে। বর্তমান থেমে থেমে বৃষ্টির কারণে পরিস্কার ও স্বচ্ছ পানিতে অ্যাডিস মশা ডিম পাড়ে। এ মুহূর্তে মশা দমন ও মশার প্রজননস্থল ধ্বংস করার জন্য ক্যাশ প্রোগ্রাম চালু করা দরকার বলে তিনি মনে করেন। না হয় চলতি মাসে এর অবস্থা আরও বাড়তে থাকবে।

কীটতত্ব বিশেষজ্ঞ আরও বলেন, পূর্ণাঙ্গ মশা দমনে কার্যকর কীটনাশক দিতে হবে। একই জায়গায় বা একই ঘরে ১০ দিনে ৪ দিন কীটনাশক দেয়ার পর মশা দমন করা সম্ভব হবে। একই সঙ্গে অ্যাডিস মশার লার্ভা দমনে লার্ভা নাশক ওষুধ (কীটনাশক) দিতে হবে। একই জায়গায় ১০ দিনের মধ্যে প্রথম দিন, দ্বিতীয় দিন, ৭ম দিন ও দশম দিন (মোট ৪ দিন) দিতে হবে।

প্রতিনিধিরা জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম দিনে ১৬৮ জন শিক্ষার্থীর রক্ত পরীক্ষা করে ১৩ জনের ডেঙ্গু শনাক্ত করা হয়েছে।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে এ পর্যন্ত নারী-শিশুসহ ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৬ জন। বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নতুন করে আরও ৭ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। ফরিদপুরে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে গত নয় দিনে ২৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। মির্জাপুরে কুমুদিনী হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ৪২ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। মেহেরপুরে ৬ জন ডেঙ্গু রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। ভৈরবে দশ দিনে ১০৬ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।

বাড়ছে মশা বাড়ছে মৃতের সংখ্যা নেই কোন কার্যকর উদ্যোগ

image

ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে : স্পিকার

image

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রনে কোলকাতার অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চান মেয়র আতিক

image

বর্ধিত হারে চাঁদা কর্তনের ফলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক, কর্মচারীরা সুফল পাচ্ছে

image

২১ বছরেও পার্বত্য চুক্তির মৌলিক বিষয়গুলো বাস্তবায়ন হয়নি : সন্তু লারমা

image

শামিম কবির বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতির পথ দেখিয়েছেন : স্মৃতিচারণে বিশিষ্টজনরা

image

বিনম্র শ্রদ্ধায় শেষ বিদায় শামিম কবিরের

image

সারাদেশে ৫শ কি.মি. রেলপথ ঝুঁকিপূর্ণ

image

গুজবে কান না দিয়ে আইন হাতে না নিয়ে গুজবকারীকে পুলিশে সোর্পদ করার আহ্বান : লন্ডন থেকে টেলিকনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী

image