ডেঙ্গু মোকাবিলায় বরাদ্দ ৫০ কোটি টাকা কোথায় : জিএম কাদের

image

ডেঙ্গু মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ব্যর্থ বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। তিনি বলেন, সময় মতো ডেঙ্গু মোকাবিলা করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। এ ব্যর্থতা মেনে নিতে হবে। দায়িত্বে থাকার পরও যারা এডিস মশা দমন করতে পারেনি তাদের এ দায় নিতে হবে। মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) জাপা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারী, যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক এমএ রাজ্জাকসহ অন্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

কাদের বলেন, ডেঙ্গু মোকাবিলায় সরকার আন্তরিকভাবেই চেষ্টা করছে। কিন্তু ওষুধ ভেজালের কারণে, না কি অন্য কোনো কারণে ফল পাওয়া যাচ্ছে না -সেটা বলা যাচ্ছে না। সরকারি হাসপাতালের মতো বেসরকারি হাসপাতালেও ডেঙ্গুর ফ্রি চিকিৎসা প্রদানের পাশাপাশি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের মধ্যে একটি চুক্তি করার আহ্বানও জানান তিনি।

তিনি বলেন, ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশার বিস্তার ঘটে জমে থাকা পরিষ্কার পানিতে। রাস্তায় ঝাড়ু দিয়ে ডেঙ্গু দূর করা যায় না। বর্ষায় সানসেটে জমে থাকা পানি, ঘরের মধ্যে ফুলের টবে জমানো পানি কিংবা ফ্রিজের নিচে জমানো পানি অথবা বিভিন্নভাবে জমে থাকা পানিতে এডিস মশার জন্ম হয়।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আমি ত্রাণ দিতে যাইনি, মূলত পর্যবেক্ষণ করতে গিয়েছি। বন্যায় মানুষ কী ধরনের সমস্যা মোকাবিলা করছে -সেসব বিষয় পর্যবেক্ষণ করেছি। পরিকলপনা করে একটি প্রস্তাব সরকারকে দেব, যাতে প্রতি বছর যারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তাদের তালিকা করা যায়।

মসিউর রহমান বলেন, আমরা পরিষ্কার করে বলতে চাই, দুর্নীতি করে যারা মশা মারার ওষুধ নিয়ে আসছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সিটি করপোরেশনের বরাদ্দ করা ৫০ কোটি টাকা কোথায়, কিভাবে খরচ করা হলো তার হিসাব দেওয়া হোক। কোথায় ডেঙ্গুর ওষুধ দেওয়া হবে এটা কিন্তু সরকারের বিষয় না, এটি দুই মেয়রের বিষয়। ভালো খারাপ যা কিছু হয়, সেটা তারাই (মেয়র) করেছেন। এখানে সরকারের কোনো বিষয় নেই। কারণ সিটি করপোরেশন স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান।