তারেক রহমান ক্যাসিনো সম্রাট : তথ্যমন্ত্রী

image

তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ক্যাসিনো সম্রাট আখ্যায়িত করে বলেছেন, বিএনপির হাত ধরেই বাংলাদেশে ক্যাসিনো সংস্কৃতি চালু হয়েছে। ২৫ সেপ্টেম্বর বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের আত্মাহুতি দিবস’ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সারাহ বেগম করবী, আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি— লন্ডনে তারেক রহমান যে আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন,সেখানে ক্যাসিনো থেকেও আয় দেখানো হয়েছে। তার (তারেক রহমানের) আয়ের একটি বড় অংশ হচ্ছে ক্যাসিনো থেকে। কারণ, ইংল্যান্ডে ক্যাসিনো থেকে আয় করলে ট্যাক্স দিতে হয় না। বিএনপি ক্যাসিনো স¤্রাটকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বানিয়ে রেখেছে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির হাত ধরেই বাংলাদেশে ক্যাসিনো সংস্কৃতি চালু হয়েছে। তারা এসব সংস্কৃতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছেন। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানই দেশে মদ-জুয়া হাউজি চালু করেছিলেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবের আশেপাশে যাদের দেখা যাচ্ছে, তারাই বাংলাদেশে ক্যাসিনো সংস্কৃতি চালু করেছিল। মির্জা আব্বাস, সাদেক হোসেন খোকা, তাদের সহযোগী মোসাদ্দেক হোসেন ফালু এবং তাদের সহযোগী যারা ক্যাসিনো চালু করেছিল, তাদের আশেপাশে রেখে মির্জা ফখরুল আজকের ক্যাসিনো, জুয়া খেলার অভিযান প্রসঙ্গে কটাক্ষ করছেন।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আজকে রাষ্ট্র ও সমাজকে পরিশুদ্ধ করার লক্ষ্যে এবং সব ধরনের অবৈধ অনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধ করার লক্ষ্যে দলমত নির্বিশেষে যে সাঁড়াশি অভিযান চলছে, এটা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। এ অভিযান নিয়ে কটাক্ষ করার আগে নিজেদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দিকে একটু তাকান। আসুন দেশকে কুলষমুক্ত করার জন্য এবং দেশ থেকে সব ধরনের অনাচার নির্মূল করার জন্য একযোগে কাজ করি। আপনাদের ব্যর্থতা ঢাকার জন্য অহেতুক সমালোচনা করবেন না।