আবার ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

image

সাফ অ-১৮ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক ভুটানকে ০-৪ গোলে হারিয়েছে সফরকারী বাংলাদেশ। ৭ অক্টোবর ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত। দিনের প্রথম সেমিফাইনালে ভারত নেপালকে টাইব্রেকারে হারায়। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র ছিল। গত মাসে সাফ অ-১৫ নারী ফুটবলেও বাংলাদেশ ভুটানে ফাইনাল খেলেছিল। এক মাসের মধ্যে ভিন্ন দুই আসরে ফাইনালে উঠল বাংলাদেশ।

দু’মিনিটে এক গোল। ৪৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোল। সেই দু’গোলেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। আরও একটি টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠে গেলেন লাল সবুজের মহিলা ফুটবলাররা। শুক্রবার ভুটানের রাজধানী থিম্পুর চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের ০-৪ গোলে হারিয়ে শিরোপা নির্ধারণী মঞ্চে ওঠে যান কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

লড়াইটা ফাইনালে ওঠার। উপরন্তু প্রতিপক্ষ স্বাগতিক ভুটান। যাদের চেনা মাঠ, চেনা পরিবেশ। তাই খুব সহজ হয়নি জেতাটা। সব মিলিয়ে সেমিফাইনালে কঠিন এক লড়াই করতে হয়েছে মৌসুমী, মারিয়াদের। অবশেষে হাফ ছেড়ে বেঁচেছেন সবাই। ভুটানের মাটিতে স্বাগতিকদেরই দর্শক বানিয়ে দিয়েছেন মৌসুমী, মারিয়া, কৃষ্ণারা।

ম্যাচের শুরুর তিন মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে দুর্দান্ত এক শটে গোল করেন সানজিদা (১-০)। কিন্তু এরপর শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তোলে ভুটান। মালদ্বীপকে ১৩ গোল দেয়া দলটিও খেলেছে বেশ আঁটসাটোভাবেই। রক্ষণভাগকে সামলে লাল সবুজদের শিবিরে হানাও দিয়েছে তারা। তবে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিলেন মৌসুমীরাই। বার বার স্বাগতিক শিবিরের বিপদ সীমানায় আক্রমণ করেছেন। কিন্তু ভুটানের রক্ষণে সব আক্রমণই আছড়ে পড়েছে। সেই আক্রমণগুলো বিশ্বস্ততার সঙ্গে মাঠের বাইরে ফিরিয়ে দিয়েছেন স্বাগতিক রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা। বাংলাদেশের সীমানায় ভুটানও আক্রমণ করেছে। তবে ৪৮ মিনিটে বাংলাদেশকে আরও এগিয়ে দেন অধিনায়ক মিশরাত জাহান মৌসুমী। বক্সের মধ্যে জটলার সৃষ্টি হয়। সেখানেই দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি। পায়ে বল আসা মাত্রই দেরি করেননি এই সুযোগ সন্ধানী সেন্টার মিডফিল্ডার। আলতো শটে ভুটানের গোলকিপারকে বোকা বানিয়ে বল জালে জড়ান (২-০)। ম্যাচের ৬০ মিনিটে আরও একেটি গোল করেন বাংলাদেশকে নিরাপদ দূরত্বে নিয়ে যান কৃষ্ণা রানী সরকার (৩-০)। ৮৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করেন শামসুন্নাহার (৪-০)।