আর্সেনালের মাটিতে ৪৭ বছর পর লিস্টারের জয়

image

লিস্টার সিটি ৪৭ বছরের মধ্যে প্রথম ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে আর্সেনালের মাঠে জয়ী হয়েছে। বদলি খেলোয়াড় জেমি ভার্ডির করা একমাত্র গোলে পূর্ণ তিন পয়েন্ট পায় লিস্টার সিটি। এ জয়ের ফলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে ব্রেন্ডন রজার্সের দল লিস্টার পয়েন্ট তালিকার চতুর্থ স্থানে উন্নীত হয়েছে। অপরদিকে আর্সেনাল ৬ ম্যাচ শেষে ৯ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে অবস্থান করছে।

প্রথম আধঘন্টা চমৎকার খেলেও কোন গোল করতে না পারার খেসারত দিয়েছে আর্সেনাল। প্রথম আধ ঘন্টায় তারা প্রতিপক্ষের পোস্ট লক্ষ করে দশটি শট নেয়, এছাড়া তারা ৬টি কর্নার কিকও আদায় করে। প্রথম ৩০ মিনিটে লিস্টার মাত্র একটি শট নিতে সক্ষম হয় এ সময়ে তারা কোন কর্নার কিক আদায় করতে পারেনি। আর্সেনাল চতুর্থ মিনিটে কর্নার কিক থেকে বল জালে পাঠিয়েছিল। কিন্তু তিনজন খেলার অফসাইড থাকায় সেটি বাতিল হয়ে যায়। কর্নার কিক থেকে আলেকজান্দ্রে ল্যাকাজেটি চমৎকারভাবে ক্লিক করে পরাস্ত করেছিলেন গোলরক্ষক ক্যাস্পার স্মাইকেলকে। এরপর কিয়েরানের ক্রস থেকে অধিনায়ক পিয়েরি এমরিক অবামেয়াং এর হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। আর্সেনাল একের পর এক আক্রমণ করেও লিস্টারের পোস্টে বল পাঠাতে ব্যর্থ হয়। ইনজুরির কারণে আগের দুটি ম্যাচে খেলতে না পারা ভার্ডি খেলার আধঘন্টা বাকি থাকতে মাঠে নামেন। তিনি ৮০ মিনিটে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন।

ম্যাচ শেষে গোলদাতা ভার্ডি বলেন, ‘আমরা শুরুরর দিকে ঝড়ের মধ্যে পড়েছিলাম। পরে সেখান থেকে বের হয়ে জয়ী হয়েছি। আমাদের জন্য এটা বিশাল অর্জন, যা পরবর্তী ম্যাচে আরো ভালো খেলতে উৎসাহিত করবে।’ অ্যাস্টন ভিলা এবং ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড কাছে পরাজয়ের পর এ জয় সত্যিকার অর্থেই লিস্টারকে উজ্জীবিত করবে। ভার্ডি আরো বলেন আমাদের আগের দুটি ম্যাচ খুব খারাপ গিয়েছে এবং আমরা চেয়েছিলাম সঠিক পথে ফিরতে। সৌভাগ্যবশত বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নেমে আমি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পেরেছি। এটা আমাদের উজ্জীবিত করবে শেষ দুটি ম্যাচে আমরা তেমন ভালো করতে পারিনি তবে এখানে এসে জিততে পারায় সবাই খুবই খুশি।’ আর্সেনালের বিপক্ষে ভার্ডির এটা ছিল ১১ তম লিগ গোল। ওয়েন রুনির পর তিনি গার্নারদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি গোল করার কৃতিত্ব অর্জন করেন। তার এ গোলে লেস্টার সিটি ১৯৭৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের পর এই প্রথম আর্সেনালকে তাদের মাটিতে হারালো।