জেসুসের জোড়া গোলে জিতল ব্রাজিল

image

বদলি খেলোয়াড় গ্যাব্রিয়েল জেসুসের জোড়া গোলে ব্রাজিল মঙ্গলবার এক প্রীতি ম্যাচে চেক প্রজাতন্ত্রকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়েছে। আগের ম্যাচে দুর্বল পানামার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করা ব্রাজিল এ ম্যাচে পিছিয়ে পড়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়িয়ে তিন গোল করে।

রেকর্ড সংখ্যক পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল পোর্তোয় অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে পানামার সঙ্গে ড্র’র হতাশা কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্যে মাঠে নামে। কিন্তু শুরুটা হয় তাদের আরও বেশি হতাশায়। দারুণ এক আক্রমণে চেক প্রজাতন্ত্র লিড নেয়।

গোলটি করেন ডেভিড পাভেলকা। লিভারপুলের স্ট্রাইকার রবার্তো ফিরমিনো বিরতির ঠিক পর পরই গোল করলে সমতায় ফেরে ব্রাজিল। এ গোল তাদের আত্মবিশ^াস বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে তারা ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয়। বার্সেলোনার খেলোয়াড় ফিলিপ কুটিনহোর বদলে ৭২ মিনিটে মাঠে নামা গ্যাব্রিয়েল জেসুস ৮৩ মিনিটে গোল করলে লিড নেয় ব্রাজিল। এর সাত মিনিট পর তিনি আরেকটি গোল করে ব্রাজিলের জয় নিশ্চিত করেন।

ম্যাচ শেষে ব্রাজিলের কোচ টিটে বলেন, ‘প্রথমার্ধটা আমাদের জন্য ছিল বেশ কঠিন। তখন আমাদের খেলা ধারাবাহিক ছিল না। আমরা দ্বিতীয়ার্ধে খেলোয়াড় বদল করলে পরিস্থিতির উন্নতি হয় এবং আমরা ভাল খেলি। আমি জেসুসের মধ্যে দৃঢ় প্রত্যয় দেখেছি। সে কেবল গোল করার জন্যই নয় সুযোগ তৈরির জন্যও মরিয়া হয়ে চেষ্টা করেছে।’ চেক প্রজাতন্ত্র এর আগে শুক্রবার ইউরো ২০২০ এর বাছাই পর্বে ইংল্যান্ডের কাছে হেরেছিল ৫-০ গোলে। সেই একাদশে চারটি পরিবর্তন করে এ ম্যাচ খেলতে নামে তারা। তারা ৩৭ মিনিটে পাভেলকার গোলে লিড নেয়। একটি পাস ব্রাজিলের রক্ষণভাগের একজন খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে পাভেলকার কাছে গেলে তিনি পরাস্ত করেন গোলরক্ষক অ্যালিসনকে। তারকা খেলোয়াড় নেইমারকে ছাড়া খেলতে নামা ব্রাজিল বিরতির পর ফিরমিনোর গোলে সমতায় ফেরে। চেকের বদলি খেলোয়াড় থিওডোর গাব্রির একটি ভুল পাস পেয়ে ফিরমিনো গোলটি করেন। এ গোলে আত্মবিশ^াস ফিরে পায় ব্রাজিল। বদলি খেলোয়াড় ডেভিড নেসের ক্রস থেকে জেসুস গোল করে দলকে লিড পাইয়ে দেন। সাত মিনিটের ব্যবধানে তিনি করেন আরেকটি গোল। চেক ম্যানেজার ইয়ারোসøাভ সিলহাভি মনে করেন দ্বিতীয়ার্ধে চাপ ধরে রাখতে না পারার খেসারত দিতে হয়েছে তার দলকে। তাদের শিথিলতায় লিড নিতে সক্ষম হয় ব্রাজিল। তিন বলেন, ‘আমরা দ্বিতীয়ার্ধে প্রথমার্ধের মতো গতি ধরে রাখতে পারিনি। প্রথমার্ধে ব্রাজিল বুঝতে পারেনি কিভাবে আমাদের সামাল দিবে। সমতাসূচক গোল ব্রাজিলকে আস্থা ফিরিয়ে দেয়। সে গোলটি হয় আমাদের ভুলে।’

জুন মাসে নিজ দেশে অনুষ্ঠিতব্য কোপা আমেরিকার আগে ব্রাজিলের এটাই ছিল শেষ প্রীতি ম্যাচ। কোপা আমেরিকায় ব্রাজিল গ্রুপ পর্বে বলিভিয়ার বিপক্ষে খেলবে প্রথম ম্যাচ।’ ওয়েবসাইট।