বিশ্বকাপে মিরাজের লক্ষ্য মিতব্যয়ী বোলিং

image

আসন্ন বিশ্বকাপে করণীয় ঠিক করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। উপমহাদেশের উইকেটে আক্রমণাত্মক বল করা এই তরুণ অফ স্পিনার ইংল্যান্ডে করতে চান মিতব্যয়ী বোলিং। সেই সঙ্গে নিচের দিকে নেমে ঝড়ো ২০/২৫ রানের ইনিংসে ব্যাটিংয়েও রাখতে চান অবদান।

মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমি মাঠে ৩১ মার্চ রোববার আবাহনীর অনুশীলন শেষে মিরাজ জানান, ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে খেলার ফাঁকে বিশ্বকাপের জন্যও নিজেকে প্রস্তুত করছেন তিনি। বলেন, ‘আমার মনে হয়, (ইংল্যান্ডে) স্পিনারদের রান বেঁধে রাখা খুব জরুরি। কারণ, ওইসব দেশে কিন্তু স্পিনাররা বেশি সাহায্য পাবে না। উইকেট না বের করতে পারলেও মিতব্যয়ী বোলিং করতে হবে। ওভারপ্রতি পাঁচ-সাড়ে পাঁচ করে রান দিলেও আমার মনে হয় অনেক ভালো বোলিং ফিগার হবে। এর মধ্যে দুই-একটা উইকেট নিতে পারলে অনেক ভালো হবে। বিশ্বকাপে স্পিনারদের মূল ভূমিকা হবে পেসারদের সাহায্য করা এবং রান কম দেয়া।’

বিশ্বকাপে ব্যাটিংয়েও অবদান রাখার ভালো সুযোগ আছে মনে করেন মিরাজ। আট বা নয় নম্বরে নেমে দ্রুত ২০-৩০ রান করে পার্থক্য গড়ে দেয়া সম্ভব বলে মনে করেন এই তরুণ অলরাউন্ডার। ‘আমি মনে করি, দলের বিপদের সময় ২০-৩০ রান অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমি জানি, অনেক বড় ইনিংস খেলার সুযোগ হয়তো পাব না। দল আমার কাছ থেকে আশা করে ২০-৩০-৪০ রান। আমি যদি স্কোরবোর্ডে তেমন রান যোগ করতে পারি বা শেষের দিকে একটা জুটি গড়তে পারি তাহলে দলের জন্য অনেক সাহায্য হবে। শেষের ২০-৩০টা রান কিভাবে করতে হবে তা নিয়েই কাজ করছি। কারণ, ওই সময় অনেক ভালো বোলাররা বোলিং করেন, ভিন্ন ভিন্ন ফিল্ডিং সেট আপ থাকে। এগুলোর কথা ভেবে প্রস্তুতি নিচ্ছি, যেন ওখানে গিয়ে সামাল দিতে পারি।’

নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে সিরিজে খেলার সময় মিরাজ বুঝতে পেরেছেন, ইংল্যান্ডের ভালো করতে কোন কোন ক্ষেত্রে উন্নতি করতে হবে। আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ত্রিদেশীয় সিরিজে দেখাতে চান উন্নতির প্রমাণ। ‘ইংল্যান্ডে গত বছর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে একটা ম্যাচে খেলেছিলাম। তখন দেখেছি, উইকেট খুব ভালো থাকে। তেমন একটা স্পিন থাকবে না, সুন্দরভাবে বল ব্যাটে আসে। তাই পরিকল্পনা অনুযায়ী বোলিং করতে হবে। কিভাবে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা যায় তার কাজ শুরু করেছি। প্রিমিয়ার লীগের মধ্যে ফিটনেসের কাজ করতে হবে। বোলিংয়ের কিছু ড্রিলও আছে। বোলিং স্কিলের উন্নতি করতে হবে। হয়তো খুব বেশি সময় পাব না। যেটুকু সময় পাবো সেটা যথাযথ কাজে লাগাতে হবে।’ ওয়েবসাইট।