সুস্থতার জন্য ক্রীড়া চর্চার বিকল্প নেই : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

image

সুস্থতার জন্য ক্রীড়া চর্চার বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা কলেজের ‘বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ২০২০’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, খেলাধুলা এমন একটি বিষয় যেটা মানুষকে জয়-পরাজয়ের মানসিকতা শিক্ষাদান করে। দৈহিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকার জন্য প্রথমে দেহকে সুস্থ রাখতে হবে। দৈহিকভাবে সুস্থ না থাকলে মানসিকভাবে সুস্থ থাকা যায় না। দেহের সুস্থতা রক্ষায় এবং সুস্থ জাতি গঠনের জন্য খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের যুবকদের বড় অগ্রগতি হয়েছে। গতবছর সাউথ এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ ৪টি স্বর্ণ ও ৭২টি পদক পেয়েছে। এবারের আসরে ১৯টি স্বর্ণ ও ১৪২টি পদক পেয়েছে। ক্রীড়াক্ষেত্রে এটি আমাদের অনন্য সাফল্য।

মন্ত্রী বলেন, এমন একটি কলেজে উপস্থিত হয়েছি যেটি দীর্ঘদিন ধরে তার প্রথম অবস্থান ধরে রেখেছে। সব দিক থেকে ঢাকা কলেজ এখন দেশের রোল মডেল। এই কলেজে আসতে পেরে আমি ধন্য। আমাকে এখানে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য কলেজ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।

সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ বিশ্বে এখন রোল মডেল উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন দেখেছিলেন। বাংলার দামাল ছেলেরা সেটি সম্ভব করেছে। এ সময় ঢাকা কলেজে জিমনেশিয়াম, খেলাধুলার সরঞ্জামাদির সংকট নিরসনসহ ক্রিকেট পিচ তৈরির ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, ঢাকা কলেজ তার ঐতিহ্য ও গৌরব ধরে রাখতে বদ্ধ পরিকর। শিক্ষার্থীরা পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার পাশাপাশি খেলাধুলাতেও সক্রিয় হয়েছে। এজন্য ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের আমি ধন্যবাদ জানাই। এই ধারা অব্যহত থাকলে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক উৎকর্ষতা আরও বৃদ্ধি পাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এ সময় ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এটিএম মইনুল হোসেন, শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ড. আবদুল কুদ্দুস সিকদার, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানগন, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মচারীসহ অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। দিনব্যাপী প্রতিযোগিতায় মোট ২২টি ইভেন্টের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। পরে খেলাধুলায় অংগ্রহণকারী বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।