download

জঙ্গিবাদ দমনে আদর্শিক লড়াই চালাতে হবে

গত শুক্রবার ভোরে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে একটি বাড়িতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ততার অভিযোগে চারজনকে আটক করেছে। র‌্যাবের অভিযানে বিদেশি পিস্তল, গান পাউডার, ফিউজ, ডেটোনেটর, চাপাতি প্রভৃতি উদ্ধার করা হয়েছে। র‌্যাব বলছে, উল্লিখিত বাড়িটিতে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির মাসিক সভা থেকে আঞ্চলিক কমান্ডারসহ চার জঙ্গিকে আটক করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জে অভিযান চালানো হয়। র‌্যাব বলছে, জেএমবি নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে।

জেএমবি বা জঙ্গিবাদী আদর্শে বিশ্বাসীদের সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা নতুন নয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অব্যাহত অভিযানের মধ্যেও তারা সংগঠিত হচ্ছে। নিয়মিত মাসিক সভা করা, প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা, নতুন নতুন সদস্য সংগ্রহ করা, অস্ত্র ও অর্থ সংগ্রহ করা- এসবই জঙ্গিদের সংগঠিত হওয়ার প্রমাণ। জঙ্গিবাদে বিশ্বাসীরা নিছক সংগঠিত হওয়ার চেষ্টার গন্ডিতে আটক নেই। তারা রীতিমতো সংগঠিত হয়ে পড়েছে। জঙ্গিদের নতুন নতুন নেতৃত্বের সন্ধান মিলছে। এটা ঠিক যে, হলি আর্টিজানের ঘটনার পর দেশে জঙ্গি হামলার বড় কোন ঘটনা ঘটেনি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দাবি করছে, জঙ্গিদের বড় হামলার সক্ষমতা নেই। আমরা বলতে চাই, জঙ্গিবাদ যে কোন সময় ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারে। নৃশংসতা প্রকাশের জন্য তাদের তেমন কোন সক্ষমতার প্রয়োজন আদতে পড়ে না। দেশে-বিদেশে এর বহু নজির রয়েছে। কাজেই জঙ্গিদের সক্ষমতা নেই বলে নিশ্চিন্ত হওয়ার সুযোগ নেই।

সরকার জঙ্গিবিরোধী অভিযান অব্যাহত রেখেছে। জঙ্গি দমনে বিশেষায়িত ইউনিট করেছে। তবে জঙ্গিবাদকে দেশ থেকে নির্মূল করা যায়নি। জঙ্গিবাদকে কার্যকরভাবে নির্মূল করতে হলে আদর্শিক লড়াই চালাতে হবে। জঙ্গিদের আদর্শিকভাবে পরাস্ত করতে হবে। দেশের মানুষ বিশেষ করে তরুণ সমাজ যেন জঙ্গিবাদী আদর্শে উদ্বুদ্ধ না হয় সেজন্য এটা অত্যন্ত জরুরি। বাস্তবতা হচ্ছে, সরকার দেশে জঙ্গিবিরোধী কার্যকর সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি। শুধু জঙ্গিবিরোধী প্রচার চালানোই যথেষ্ট নয়। সরকারকে অনতিবিলম্বে জঙ্গিবিরোধী আন্দোলনের সূচনা করতে হবে। এ আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততার পাশাপাশি সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

আবাদযোগ্য জলাশয়গুলো কচুরিপানামুক্ত করুন

পানি কমে গেলেও পাবনার সুজানগর উপজেলার গাজনার বিলের কৃষকরা চাষাবাদ শুরু করতে পারছেন না।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধীদের কাছে নতিস্বীকার করা চলবে না

দেশে কোন ভাস্কর্য তৈরি হলে টেনেহিঁচড়ে ফেলে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের নব্য আমির জুনায়েদ বাবু নগরী।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় চাই সমন্বিত পদক্ষেপ

বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণের উদ্যোগ নিতে সরকারকে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, করোনা মোকাবিলায় গোটা সরকারব্যবস্থাকে যুক্ত করা দরকার।

সুনির্দিষ্ট নীতিমালা ও কর্মপরিকল্পনা থাকা জরুরি

প্রায় ১০ কোটি করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন পাওয়ার আশ্বাস মিলেছে। গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশনস (গ্যাভি) ৬ কোটি ৮০ লাখ ও ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট তিন কোটি টিকা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

তদন্ত করে রহস্য উদ্ঘাটন করুন

আবার আগুন লাগল রাজধানীর কালশীর বাউনিয়াবাদের বস্তিতে। এ নিয়ে গত ১১ মাসে সেখানে দুবার অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটল। কিন্তু এসব অগ্নিকান্ড কেন ঘটছে, তার তদন্ত হচ্ছে না।

গণঅভ্যুত্থান, জাতীয় স্বাস্থ্যনীতি এবং বিএমএ

image

আদিয়স ‘দিয়োস ভিভো’ ম্যারাডোনা

বিশ্ব ফুটবলের অবিসংবাদিত তারকা আর্জেন্টিনার ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনা (৬০) গতকাল বুধবার নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

এসএমই খাতে ঋণপ্রবাহ বাড়ান নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করুন

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো (এসএমই) দেশের কর্মসংস্থানের বড় ক্ষেত্রে পরিণত হচ্ছে।

করোনা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব দিন

আত্মঘাতী হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে ব্যবহৃত স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী।