সঞ্চয়পত্রের মুনাফার উৎসে কর বৃদ্ধির প্রস্তাব প্রত্যাহার করুন

প্রস্তাবিত বাজেটে সঞ্চয়পত্রের মুনাফার ওপর উৎসে কর ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার কথা বলা হয়েছে। উৎসে কর দ্বিগুণ করার কারণে সঞ্চয়পত্রের গ্রাহকদের আয় কমে যাবে। বাজেটের আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার না কমানোর কথা বলেছিলেন। মুনাফার হার কমানো না হলেও উৎসে কর আরোপের মাধ্যমে মূলত গ্রাহকদের মুনাফায় হাত দেয়া হলো। বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী উৎসে কর দ্বিগুণ করার বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন।

গত আওয়ামী লীগ সরকার আমলে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানোর জন্য একাধিকবার উদ্যোগ নিয়েও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। সঞ্চয়পত্রের সঙ্গে সামাজিক নিরাপত্তার প্রশ্ন জড়িত আছে। সঞ্চয়পত্রে যারা বিনিয়োগ করেন তাদের সিংহভাগই পেনশনভোগী, অসহায় নারী, প্রবীণ এবং নিরুপায় মানুষ। তারা সঞ্চয়পত্রের মুনাফার টাকায় জীবিকা নির্বাহ করেন, চিকিৎসার খরচ মেটান। সঞ্চয়পত্র ছাড়া বিনিয়োগের আর যেসব বিকল্প মাধ্যম আছে তাতে তাদের জীবন চালানো কঠিন। ব্যাংকে টাকা রেখে মূল্যস্ফীতিকে মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। পুঁজিবাজার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের সর্বস্বান্ত করার কারখানায় পরিণত হয়েছে। এ অবস্থায় সঞ্চয়পত্রের মুনাফাই মধ্য ও নিম্নবিত্তের মূল ভরসা। এখন সরকার যদি এর মুনাফায় উৎসে কর দ্বিগুণ করে তবে তারা বিপাকে পড়বেন।

আমরা সঞ্চয়পত্রের উৎসে কর না বাড়ানোর দাবি জানাই। সঞ্চয়পত্র সামাজিক নিরাপত্তায় যে ভূমিকা রাখছে সেটা বিবেচনা করে দেখতে হবে। উৎসে কর না বাড়িয়ে প্রকৃত উপকারভোগী চিহ্নিত করে শুধু তাদের কাছে সঞ্চয়পত্র বিক্রির উদ্যোগ নিতে হবে। অভিযোগ আছে, সম্পদশালীরা নামে-বেনামে কোটি কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র কিনছেন। এমনকি মন্ত্রী-এমপিদের বিরুদ্ধেও এ অভিযোগ আছে। প্রকৃত উপকারভোগী চিহ্নিত করা কঠিন কাজ নয়। অর্থমন্ত্রী বলেছেন, সঞ্চয়পত্র কেনাবেচার ব্যবস্থাপনা আধুনিক করার কাজ চলছে। এনআইডি বাধ্যতামূলক করে সঞ্চয়পত্র কেনার ঊর্ধ্বসীমা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করা হলে ছদ্ম উপকারভোগীদের নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। তখন সরকারের সঞ্চয়পত্র কেনার খরচও কমবে।

অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন, সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমলে বা গ্রাহকের মুনাফা কমানো গেলে সরকারের ওপর থেকে অর্থনৈতিক চাপ কমবে। আমরা জানতে চাই, খেলাপি ঋণ বা মানি লন্ডারিংয়ের চেয়ে কি সঞ্চয়পত্র সরকারের ওপর বেশি চাপ সৃষ্টি করছে। সরকারের ওপর থেকে আর্থিক চাপ কমানোর বহু উপায় রয়েছে। সঞ্চয়পত্রের মুনাফায় হাত না দিয়ে খেলাপি ঋণ আদায় করা হোক, মানি লন্ডারিং বন্ধ করা হোক।

দৈনিক সংবাদ : ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

পুলিশের ভূমিকা খতিয়ে দেখতে হবে

ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার মামলায় স্থানীয় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভিকটিমের স্বজনরা।