download

সরকারি কেনাকাটায় অনিয়ম দূর করুন

সরকারি কেনাকাটায় কিছুতেই দুর্নীতি থামানো যাচ্ছে না। সুযোগ পেলেই সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, দপ্তর, অধিদপ্তরের কেনাকাটার সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তারা দুর্নীতি করছেন পণ্য কেনাকাটায়। কোন রকম নিয়ম না মেনে কিংবা নিয়মের ফাঁকফোকর গলিয়ে তারা নিজেদের পছন্দের ঠিকাদারদের দিয়ে বাজার মূল্যের চেয়ে উচ্চ মূল্যে কেনাকাটা করে নিজেদের পকেট ভারি করেন। এতে সরকারের বড় অঙ্কের আর্থিক লোকসান হয়। সাম্প্রতিক সময়ে অনেক দপ্তরের কেনাকাটা নিয়ে দুর্নীতির খবর প্রকাশিত হওয়া, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কর্তৃক তথ্য প্রমাণ পাওয়া এবং কেনাকাটায় সম্পৃক্ত একাধিক কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করার পরও কেনাকাটায় দুর্নীতি থামছে না।

দরপত্র জমা, গ্রহণ ও বণ্টনের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক প্রভাব এখন ‘ওপেন সিক্রেট’। এর সঙ্গে যুক্ত হয় একশ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীর ঘুষ বা কমিশন বাণিজ্য। এই দুটি দিক যদি নিয়ন্ত্রণে আনা না যায়, তাহলে ডিজিটাল কিংবা ম্যানুয়াল- যে কোন পদ্ধতিতেই দুর্নীতি হতে পারে। কেনাকাটার সঙ্গে যুক্ত সর্বোচ্চ কর্মকর্তা যদি নিজে দুর্নীতিগ্রস্ত হন তাহলে কেনাকাটায় দুর্নীতি থামানো কঠিন। কর্মকর্তারা নিজেদের পছন্দের ও ঘনিষ্ঠ ঠিকাদারদের দিয়ে কেনাকাটা করান, যাতে উভয়পক্ষ আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারে। আর জরুরি ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক কেনাকাটা হলে আরও জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। দরপত্রের ক্ষেত্রে ই-জিপি চালু করলেও সেখানে দুর্নীতির আশ্রয় নেয়া হয়। এ কারণে কেনাকাটায় দুর্নীতি বন্ধ করা যাচ্ছে না। সরকারি কেনাকাটার ব্যাপারে পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন (পিপিআর) ও বিধিমালা রয়েছে। এটি অনুসরণ করলে কোনভাবেই দুর্নীতি হওয়ার কথা নয়। কিন্তু কেনাকাটার সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তারা তা যথাযথভাবে অনুসরণ না করে বরং তারা কীভাবে আর্থিক অনিয়ম ও দুর্নীতি করা যায় সেদিকটি বেশি খুঁজতে থাকেন।

সরকারি ক্রয়ে স্বচ্ছতা ও সুশাসন ফিরিয়ে আনতেই হবে। দুর্নীতি ও অনিয়মের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা নৈতিকভাবে তাদের সুপিরিয়র রেসপনসিবিলিটি (নেতৃত্বের দায়) এড়াতে পারেন না। এক্ষেত্রে তাদের জবাবদিহির কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হবে। দুর্নীতি বন্ধে আইনের কঠোর প্রয়োগের কোন বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে আইন কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা জরুরি। যারা পিপিআর ভঙ্গ করেন তাদের কঠিন শাস্তির আওতায় আনতে হবে। দেশে দুর্নীতির মামলা যেভাবে এবং যে প্রক্রিয়ায় হয়, তাতে শাস্তি দেয়া কঠিন ও সময়সাপেক্ষ। এই প্রক্রিয়া সহজ করতে হবে। দুর্নীতির মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে প্রয়োজনে একটি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করতে হবে।

আবাদযোগ্য জলাশয়গুলো কচুরিপানামুক্ত করুন

পানি কমে গেলেও পাবনার সুজানগর উপজেলার গাজনার বিলের কৃষকরা চাষাবাদ শুরু করতে পারছেন না।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধীদের কাছে নতিস্বীকার করা চলবে না

দেশে কোন ভাস্কর্য তৈরি হলে টেনেহিঁচড়ে ফেলে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের নব্য আমির জুনায়েদ বাবু নগরী।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় চাই সমন্বিত পদক্ষেপ

বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণের উদ্যোগ নিতে সরকারকে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, করোনা মোকাবিলায় গোটা সরকারব্যবস্থাকে যুক্ত করা দরকার।

সুনির্দিষ্ট নীতিমালা ও কর্মপরিকল্পনা থাকা জরুরি

প্রায় ১০ কোটি করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন পাওয়ার আশ্বাস মিলেছে। গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশনস (গ্যাভি) ৬ কোটি ৮০ লাখ ও ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট তিন কোটি টিকা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

তদন্ত করে রহস্য উদ্ঘাটন করুন

আবার আগুন লাগল রাজধানীর কালশীর বাউনিয়াবাদের বস্তিতে। এ নিয়ে গত ১১ মাসে সেখানে দুবার অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটল। কিন্তু এসব অগ্নিকান্ড কেন ঘটছে, তার তদন্ত হচ্ছে না।

গণঅভ্যুত্থান, জাতীয় স্বাস্থ্যনীতি এবং বিএমএ

image

আদিয়স ‘দিয়োস ভিভো’ ম্যারাডোনা

বিশ্ব ফুটবলের অবিসংবাদিত তারকা আর্জেন্টিনার ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনা (৬০) গতকাল বুধবার নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

এসএমই খাতে ঋণপ্রবাহ বাড়ান নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করুন

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো (এসএমই) দেশের কর্মসংস্থানের বড় ক্ষেত্রে পরিণত হচ্ছে।

করোনা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব দিন

আত্মঘাতী হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে ব্যবহৃত স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী।