download

মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী ২০২১

জাদুকর পিসি সরকার

জোবায়ের আলী জুয়েল

image

আধুনিক বাঙালিদের মধ্যে যে কয়জন ক্ষণজন্মা মানুষ আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জন করেছিলেন পিসি সরকার তাদের মধ্যে অন্যতম। জাদুশিল্পী পিসি সরকারের পুরো নাম প্রতুল চন্দ্র সরকার। ১৯১৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি টাঙ্গাইল জেলার আশেকপুর গ্রামে এক মধ্যবিত্ত পরিবারে তার জন্ম। স্থানীয় শিবনাথ হাইস্কুলে তার শিক্ষা জীবন শুরু হয়। পিতার নাম ভগবান চন্দ্র সরকার ও মায়ের নাম কুসুম কামিনী দেবী।

সপ্তম-অষ্টম শ্রেণীতে পড়া অবস্থায় পিসি সরকার জাদু দেখানো শুরু করেন। সেকালের বিখ্যাত জাদুকর গণপতি চক্রবর্তী ছিলেন তার জাদুবিদ্যার গুরু। টাঙ্গাইলের করটিয়া সা’দত কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় সহপাঠীদের জাদু দেখিয়ে তাক লাগিয়ে দিতেন। ১৯২৯ সালে প্রবেশিকা এবং ১৯৩৩ সালে গণিত শাস্ত্রে অনার্সসহ বিএ পাস করে তিনি জাদুকেই পেশা হিসেবে গ্রহণ করেন।

কোলকাতা ইম্পেরিয়াল রেস্টুরেন্টে শেরে বাংলা একে ফজলুল হককে যে জাদু দেখিয়ে তিনি মুগ্ধ করেন, তার শিরোনাম ছিল ‘বাংলার মন্ত্রিম-লীর পদত্যাগ’। একটি সাদা কাগজে প্রথমে তিনি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরে বাংলা ফজলুল হককে কিছু লিখতে বলেন এবং তার নিচে মন্ত্রীরা স্বাক্ষর করেন। কিছুক্ষণ পর শেরে বাংলা ফজলুল হক তার নিজের লেখার পরিবর্তে দেখেন ‘আমরা সর্বসম্মতিক্রমে সবাই এই মুহূর্তে পদত্যাগ করলাম এবং আজ হতে জাদুকর পিসি সরকারই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী’। এটা ছিল Force writing-এর জাদু।

‘এক্সরে-আই’ করাত দিয়ে মানুষ দ্বিখন্ডিত করা তার একটি বিখ্যাত খেলা। এই খেলাটি দেখে দর্শকরা অভিভূত হয়ে পড়েন। দ্বিখন্ডিত তরুণটির কুশলবার্তা জিজ্ঞাসা নিয়ে বিবিসি অফিসে এত টেলিফোন আসতে থাকে যে, দুই ঘণ্টা পর্যন্ত অফিসের সব টেলিফোন লাইন জ্যাম হয়ে যায়। নিউইয়র্কের টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ এই খেলাটি দেখাবার জন্য তাকে বিশেষ বিমানে আমেরিকায় নিয়ে যায়।

মহানায়ক উত্তম কুমারকে দিয়ে তিনি তার বিশ্ববিখ্যাত জাদু ‘কায়া যায়, ছায়া থাকে’ খেলাটি দেখিয়ে ছিলেন। পিসি সরকার উত্তর কুমারকে স্টেজে আমন্ত্রণ জানান এবং পেছনে একটি সাদা স্ক্রিনে তাকে দাঁড় করিয়ে রাখেন। পর্দায় সার্চলাইটের আলো ফেলার সঙ্গে সঙ্গে উত্তম কুমারের ছায়া পর্দায় ভেসে ওঠে। স্টেজে তিনি উত্তম কুমারকে আসন গ্রহণ করতে বলেন। কিন্তু কী আশ্চয! উত্তর কুমার পর্দা থেকে সরে গেলেও তার ছায়া পর্দায় রয়ে যায়।

জাদু দেখিয়ে পিসি সরকার দেশে-বিদেশে অনেক পুরস্কার পেয়েছেন। জাদু বিদ্যার নোবেল প্রাইজ বলে খ্যাত ‘দি ফিনিক্স অ্যাওয়ার্ড’ তিনি দু’বার লাভ করেন। এছাড়া তিনি ‘গোল্ডবার’ পুরস্কার, ‘সূবর্ণ লরেন মালা’ নামে জাদুর ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় জার্মান পুরস্কার, হল্যান্ডের ‘ট্রিকস পুরস্কার’ এবং ১৯৬৪ সালে ভারত সরকার প্রদত্ত ‘পদ্মশ্রী’ উপাধী লাভ করেন। জাদু খেলার কৃতিত্বের জন্য তৎকালীন মায়ানমারের (বার্মার) প্রধানমন্ত্রী তার নাম দিয়েছিলেন ‘এশিয়ার গর্ব’।

পিসি সরকার ১৯৭০ সালের ১৩ জানুয়ারি জাপানের আশাহিকাওয়ায় জাদু প্রদর্শন করতে গিয়ে অকস্মাৎ মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৫৭ বছর।

[লেখক : অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা]

একটা আন্দোলনের নাম

image

ডিজিটাল শিক্ষার নতুন দিগন্ত

কারও পক্ষে বিশ্বাস করাও কঠিন হবে যে দুই দশক আগে ২০০০ সালে বাংলাদেশে শিক্ষার ডিজিটাল যাত্রার সূচনা হয়েছে, আর তার দুই দশক পর বাংলাদেশ একটি নতুন দিগন্তে পা রেখেছে।

উৎপাদনের ভরা মৌসুমে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রাখা উচিত

সে অনুসারে আগামী চার বছরে পেঁয়াজ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের জন্য একটি রোডম্যাপ প্রণয়ন করে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

শিক্ষাদান কার্যক্রম : বিকল্প রূপরেখা

১৬ মার্চ ২০১৯ থেকে শিক্ষা গ্রহণ কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। বিকল্প উপায় হিসেবে অনলাইন ক্লাসকে বেছে নেয়া হয়েছে।

মাস্টার দা সূর্য সেন

image

পদ্মার এপার ওপার : নতুন ভাবনা নতুন প্রত্যাশা

পদ্মা সেতুকে সবাই বলছেন বাংলাদেশের স্বপ্নের সেতু।

বঙ্গবন্ধু যদি স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না করতেন

image

করোনার টিকা কতটুকু নিরাপদ

image

আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী

আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী নিয়ে বড় বড় নেতাদের মুখরোচক বক্তব্য খুব আমোদজনক।

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে স্বাধীনতা পূর্ণতা পায়

image

মহানায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

image

গৃহকর্মীদের সুরক্ষা ও কল্যাণ নিশ্চিত করতে হবে

রাজধানী ঢাকাসহ প্রশাসনিক কেন্দ্র হিসেবে এবং শিল্প ও বাণিজ্যের দ্রুত বিকাশের অনুষঙ্গ হিসেবে গড়ে ওঠা শহরে বসবাসরত

লাল-সবুজের পতাকা সব মাদ্রাসায় ওড়ে না, গাওয়া হয় না জাতীয় সংগীত

আওয়ামী লীগের মাননীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন

ম্রো জাতিগোষ্ঠীর মতোই আদিবাসী কোলও সংকটাপন্ন

১. পার্বত্য চট্টগ্রামের ম্রো জনগোষ্ঠীর কোন একজনকে প্রশ্ন করলে- কেমন আছে আদিবাসী ম্রোরা!

মশা বিড়ম্বনা

image

অস্ট্রেলিয়ায় আদিবাসীদের বিজয়

ইংরেজি নববর্ষ ২০২১-এর প্রথম দিনে বদলে গেল অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সংগীত।

করোনার আয়নায় মানুষ

image

তিস্তা : বিকল্প পথে বাংলাদেশ

image

বিদায় কমরেড, বিদায়

image

মুক্তিযুদ্ধোত্তর দিনাজপুর ট্র্যাজেডি

১৯৭১ সালে দিনাজপুর জেলা শত্রুমুক্ত হওয়ার পর ভারতীয় সৈনিকদের একটি ক্যাম্প করা হয়েছিল দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে।

অস্তিত্ব সংকটে কালোমুখো হনুমান

image

আজ হাত ধুয়েছেন তো?

হাত ধোয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ অভ্যাস; যার মাধ্যমে সহজেই অসুস্থতা থেকে বাঁচা যায়।

শিক্ষার ডিজিটাল যাত্রার দুই দশক

‘সব কিছুই আমরা ভুলে যাই’ এমন অপবাদ জাতিগতভাবে আমরা পেয়ে থাকি। দূরের ইতিহাস তো বটেই, খুব কাছের ইতিহাসই আমরা মনে রাখি না।

অমিত শাহ’র পশ্চিমবঙ্গ সফর : রাজনৈতিক প্রেক্ষিত

image

বড়দিনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা!

খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিনের দিনে বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

করোনার নতুন সংস্করণ ও টিকা

ব্রিটেনে রূপান্তরিত নতুন ধরন এবং অধিক সংক্রামক করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ যুক্তরাজ্যের ক্ষেত্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে।

আয়রন ও জিংক সমৃদ্ধ মসুর ডালের জাত

image

শীতকালীন সবজিতে পুষ্টির জোগান

image

আদর্শের সঠিক চর্চা দিয়ে রুখতে হবে অনাদর্শ-অশুভ শক্তি

বাঙালি মুসলমানের স্বরূপ উন্মোচন করতে গিয়ে প্রখ্যাত লেখক আহমদ ছফা বলেছেন, বাঙালি মুসলমানের মন যে এখনও আদিম অবস্থায়, তা বাঙালি হওয়ার জন্যও নয় এবং মুসলমান হওয়ার জন্য নয়।

প্রসঙ্গ : ব্যাংক লুটেরার দল

প্রতিটি মানুষের জীবনেই কিছু না কিছু অভিজ্ঞতা থাকে। বড়দের বড় আর ছোটদের ছোট এই যা তফাৎ।

বাবুই পাখির দুর্দশার কাল

image

যেভাবে রূপ বদলাচ্ছে করোনা

image

কাঁঠাল পাতার টাকায় খেলা!

শিশুবেলায় সবুজ ও হলুদ রঙের কাঁঠাল পাতাকে টাকা বানিয়ে কে না খেলেছে?

২০২১ হোক প্রত্যাশা পূরণের বছর

২০২০ সাল শেষ হয়ে গেল। দেশের ষোলো কোটি মানুষ আগ্রহ ও উৎসাহের সঙ্গে অপেক্ষা করছে নতুন ২০২১ সালকে অভ্যর্থনা জানাতে।

রাসায়নিকের আগুনে প্রাণহানির দায়

প্রায় ৪০০ বছরের রাজধানী পুরান ঢাকার রয়েছে দীর্ঘকালের ঐতিহ্য।

ক্রান্তিকালের প্রতিবাদী মানুষ

image

কমরেড মণি সিংহ আদর্শ রাজনীতির প্রতীক

image

৫০তম বিজয় দিবস

image

চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনকে শহীদের মর্যাদা দেয়া হোক

image

জনভাবনায় গুলিস্তান : ঢাকার ‘মগের মুল্লুক’

ঢাকার প্রাণকেন্দ্র গুলিস্তানে ফ্লাইওভারের নিচে সড়কে হকারদের জুতার দোকানে দোকানে ঘুরছিলেন আজিমপুর থেকে আসা আসাদ হোসেন।

সাপ কি পোষ মানে?

সাপ নিয়ে কত না প্রবাদ প্রচলন গ্রাম-বাংলায় প্রচলিত আছে। তবে প্রবাদ বাক্য না নিয়ে সত্যিকার ঘটনাকে উদাহরণ দিয়ে লেখাটা শুরু করলাম।

ঘুরেফিরে সংবাদকর্মীরাই হামলার লক্ষ্য হন কেন

একটা সময় ছিল যখন মানুষ ছিল জনবিচ্ছিন্ন, কুয়োর ব্যাঙের মতো নিজ গ্রাম বড়জোর স্বদেশই ছিল তার চেনা জগতের মধ্যে।

বাঘা যতীনের ভাস্কর্য

‘নব ভারতের হলদিঘাট’ বুড়িবালাম নদীর তীরে যে লড়াইয়ের কথা কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার কবিতায় উদাত্ত কণ্ঠে ঘোষণা করেছেন সেই লড়াইয়ের সেনাপতি ছিলেন যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়।

বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের বিস্ময়কর অগ্রগতি ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে

পাকিস্তানি শোষনের বিরুদ্ধে ১৯৬৬ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক প্রণীত হয় ঐতিহাসিক ৬ দফা।

ভাস্কর্য : সরকার : মৌলবাদী : প্রগতিশীল সমাজ

ভাস্কর্য ইস্যুটি বাংলাদেশে নতুন নয়। বহুদিন ধরেই চলে আসছে। ভাস্কর্য ভাঙ্গা,

করোনা নিয়ে ৪৫ দিনের ঘরবন্দি জীবন যেভাবে কাটল

শুরু হলো জ্বর, হাঁচি, কাশি। ডাক্তার বললেন, নমুনা দিয়ে আইসোলেশনে চলে যান।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন নিয়ন্ত্রণের চ্যালেঞ্জ

সম্প্রতি ব্রিটেনসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশে করোনার রূপ বদল করে নতুন স্ট্রেনের ছড়িয়ে পড়ার খবরে পৃথিবীজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

বড়দিনের বড় শিক্ষা

image

২০২০, আমাদের মুক্তি দাও

১. ২০২০ সাল যাই যাই করছে, পৃথিবীর সব মানুষ পারলে অনেক আগেই এটাকে

চৌগাছায় চলছে কৃষিতে নীরব বিপ্লব

image

তিস্তার পানি বণ্টন বিষয়টি আদৌ সুরাহা হবে কি?

গত বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।

অতুলনীয় নেতা আবদুর রাজ্জাক

image

বাবারা এমনই হয়

বাবা ছোট একটি শব্দ হলেও এর ব্যাপকতা বিশাল। বাবা ডাকের মাঝেই লুকিয়ে আছে কি গভীর ভালোবাসা, নিরাপত্তা ও নির্ভরতা। জন্ম

ডিজিটাল বাংলাদেশের দ্বিতীয় যুগ

সবেমাত্র আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার একযুগ বা ১২ বছর পারলাম। পা দিলাম দ্বিতীয় যুগে। ২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী

ভাবি, আমার ছেলে সাইন্সে পড়ে

‘ভাবি আমার ছেলে সাইন্সে পড়ে! আপনারটা কী পাইছে...! ওমা... কমার্স, আর্টস! সাইন্স শুধু ভালো স্টুডেন্টরাই পড়ে।’ এভাবে গ্রুপ নিয়ে বড়াই করা মহল্লা কাঁপানো কতিপয় মহিলা রয়েছে।

করোনা, মাস্ক এবং সাধারণ মানুষ

image

কৃষি বিজয় নীরবে নয়, ঘটছে সরবে

image

‘চোর ধরেও চোর হয়ে যাচ্ছি’

প্রধানমন্ত্রী সংসদে আক্ষেপ করে বলেছেন, ‘চোর ধরে চোর হয়ে যাচ্ছি’।

মুক্তিযুদ্ধে গাজীপুর

image

বিজয়ের পঞ্চাশ বছরে পদার্পণ প্রাসঙ্গিক বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্য ভাবনা

image

‘কুমিল্লা-চাঁদপুরে হানাদার বাহিনী যেভাবে পরাজিত হয়েছিল

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পূর্ব-দক্ষিণ রণাঙ্গনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ছিল কুমিল্লা-চাঁদপুর-হাজীগঞ্জ-লাকসাম এবং মুজাফফরগঞ্জ সড়ক।

শীতের দুর্ভোগে প্রান্তিক মানুষ

image

ধর্মভিত্তিক রাজনীতি বন্ধের অন্তরায়

১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনে সাম্প্রদায়িক রোয়েদাদের ভিত্তিতে প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন স্বীকৃত হলে বাংলার সাম্প্রদায়িক রাজনীতি নতুন মোড় নেয়।

বিজয়ের মাস ও হালের রাজনীতি

১৯৭১-এর ১৬ ডিসেম্বর ও ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর। দিন দুটি সমগ্র বাঙালি জাতির জন্য ঐতিহাসিক গুরুত্ববহ।

সরি! ম্যাডাম হিলারি!

ম্যাডাম হিলারি, এখন আপনার নিবাস, কার্যালয়, ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের কর্মপ্রান্তর, কোথায় কী, খোদ মার্কিনি মিডিয়ায়ও তেমন দেখি না।

মাঠপর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের দাবি প্রসঙ্গে

image

মুক্তিযুদ্ধের সবচেয়ে গৌরবোজ্জ্বল ঘটনা

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদারদের আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় মুক্তিযুদ্ধের মহান বিজয়।

ছয় দফা : স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছয় দফা ঘোষণা করে তার পক্ষে সারা পূর্ববাংলাব্যাপী নিরঙ্কুশ প্রচারণা চালানোর ফলে সামরিক জান্তার

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধীদের বিচার করতে হবে

রাজধানীর দোলাইরপাড় এলাকায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণকে কেন্দ্র করে কয়েক দিন ধরে পক্ষে-বিপক্ষে

বাঘা যতীনের ভাস্কর্য

‘নব ভারতের হলদিঘাট’ বুড়িবালাম নদীর তীরে যে লড়াইয়ের কথা কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার কবিতায় উদাত্ত কণ্ঠে ঘোষণা করেছেন সেই লড়াইয়ের সেনাপতি ছিলেন যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়।

বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের বিস্ময়কর অগ্রগতি ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে

পাকিস্তানি শোষনের বিরুদ্ধে ১৯৬৬ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক প্রণীত হয় ঐতিহাসিক ৬ দফা।

ভাস্কর্য : সরকার : মৌলবাদী : প্রগতিশীল সমাজ

ভাস্কর্য ইস্যুটি বাংলাদেশে নতুন নয়। বহুদিন ধরেই চলে আসছে। ভাস্কর্য ভাঙ্গা,

করোনা নিয়ে ৪৫ দিনের ঘরবন্দি জীবন যেভাবে কাটল

শুরু হলো জ্বর, হাঁচি, কাশি। ডাক্তার বললেন, নমুনা দিয়ে আইসোলেশনে চলে যান।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন নিয়ন্ত্রণের চ্যালেঞ্জ

সম্প্রতি ব্রিটেনসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশে করোনার রূপ বদল করে নতুন স্ট্রেনের ছড়িয়ে পড়ার খবরে পৃথিবীজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

বড়দিনের বড় শিক্ষা

image

২০২০, আমাদের মুক্তি দাও

১. ২০২০ সাল যাই যাই করছে, পৃথিবীর সব মানুষ পারলে অনেক আগেই এটাকে

চৌগাছায় চলছে কৃষিতে নীরব বিপ্লব

image

তিস্তার পানি বণ্টন বিষয়টি আদৌ সুরাহা হবে কি?

গত বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।

অতুলনীয় নেতা আবদুর রাজ্জাক

image

বাবারা এমনই হয়

বাবা ছোট একটি শব্দ হলেও এর ব্যাপকতা বিশাল। বাবা ডাকের মাঝেই লুকিয়ে আছে কি গভীর ভালোবাসা, নিরাপত্তা ও নির্ভরতা। জন্ম

ডিজিটাল বাংলাদেশের দ্বিতীয় যুগ

সবেমাত্র আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার একযুগ বা ১২ বছর পারলাম। পা দিলাম দ্বিতীয় যুগে। ২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী

ভাবি, আমার ছেলে সাইন্সে পড়ে

‘ভাবি আমার ছেলে সাইন্সে পড়ে! আপনারটা কী পাইছে...! ওমা... কমার্স, আর্টস! সাইন্স শুধু ভালো স্টুডেন্টরাই পড়ে।’ এভাবে গ্রুপ নিয়ে বড়াই করা মহল্লা কাঁপানো কতিপয় মহিলা রয়েছে।

করোনা, মাস্ক এবং সাধারণ মানুষ

image

কৃষি বিজয় নীরবে নয়, ঘটছে সরবে

image

‘চোর ধরেও চোর হয়ে যাচ্ছি’

প্রধানমন্ত্রী সংসদে আক্ষেপ করে বলেছেন, ‘চোর ধরে চোর হয়ে যাচ্ছি’।

মুক্তিযুদ্ধে গাজীপুর

image

বিজয়ের পঞ্চাশ বছরে পদার্পণ প্রাসঙ্গিক বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্য ভাবনা

image

‘কুমিল্লা-চাঁদপুরে হানাদার বাহিনী যেভাবে পরাজিত হয়েছিল

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পূর্ব-দক্ষিণ রণাঙ্গনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ছিল কুমিল্লা-চাঁদপুর-হাজীগঞ্জ-লাকসাম এবং মুজাফফরগঞ্জ সড়ক।

শীতের দুর্ভোগে প্রান্তিক মানুষ

image

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে অনাকাঙ্খিত বিতর্ক

আমরা অভাগা বলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যথার্থ মূল্যায়ন করতে পারলাম না।

ভূমি রেকর্ড ব্যবস্থার সক্রিয়করণ সফলতা ও ব্যর্থতা

১৯৭১ সালের যুদ্ধের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্রের আবির্ভাব হয়েছে।

‘ভয়’ শব্দটা কত স্নিগ্ধ, কত শ্রদ্ধেয়

ভদ্র হিসেবে গড়ে তুলতে গিয়ে আমরা আমাদের ছেলেমেয়েদের প্রতিবাদহীন নিষ্কর্মার ঢেঁকি অর্থাৎ অকোজো করে গড়ে তুলছি না তো?

সীমান্তে হত্যা কি থামবে না?

তথ্যমতে এ বছরে গত ১০ মাসে অত্যন্ত কমপক্ষে ৪২ জন বাংলাদেশি সাধারণ জনগণ ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গ কি ভারতের সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখে দেবে?

বিহারের নির্বাচনের পর জাতীয় রাজনীতির প্রেক্ষিতে কি হিন্দু সাম্প্রদায়িক রাহুমুক্তির দিকে আকর্ষণটা প্রবল হচ্ছে?

বাংলাদেশের রেনেসাঁ পুরুষের নিষ্ক্রমণ

image

জনসাধারণ যাবে কোথায়?

এতদিন আমরা এনজিও ও এমএলএম কোম্পানির বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ করে উধাও হওয়ার সংবাদ শুনে এসেছি।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য, ক্রিকেটার সাকিব, অতঃপর

শিরোনামটির শেষে লিখেছি ‘অতঃপর’। অর্থাৎ শেষ কোথায়? অতঃপরকে ইচ্ছে করেই প্রশ্নবোধক চিহ্নের বৃত্তে আনিনি।

মুনীর, তুই এইটা কী করলি?

আমার এ লেখাটি একজন সূদীর্ঘকালীন বন্ধুত্বের নানামুখী অভিজ্ঞতাপ্রসূত।

দেশের অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে?

সরকারি-বেসরকারি খাতে দুর্নীতি আর অর্থপাচার দেশের গোটা অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

আমি হারালাম আমার ভরসার জায়গাটি

image

চির অম্লান থাকবে মুনীরুজ্জামানের স্মৃতি

image

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য এবং মৌলবাদীদের আস্ফালন

ভাস্কর্যের বিষয়ে পবিত্র কোরআন-হাদিসে দিকনির্দেশনা রয়েছে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা নবী-রাসূলদের ঘটনার বিষয়ে একটি নীতিগত শিক্ষা দিয়ে বলেছেন, নিশ্চয় তাদের (নবী-রাসূলদের) ঘটনাবলির মাঝে জ্ঞানীদের জন্য শিক্ষণীয় বিষয় রয়েছে (সুরা ইউসুফ, আয়াত : ১১১)।

অতৃপ্তি রেখে গেলেন মুনীরুজ্জামান ভাই

image

মুনীরুজ্জমান : অসাম্প্রদায়িক চেতনার প্রতিভূ

দেশের প্রাচীন এবং ঐতিহ্যবাহী দৈনিক পত্রিকা সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খন্দকার মুনীরুজ্জামান ৭২ বছর বয়সে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।

দেশ ও জাতির স্বার্থে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময়সীমা বাড়াতে হবে

দেশ ও জাতির স্বর্থে আয়কর চলতি (২০২০-২১) করবর্ষে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময়সীমা বাড়াতে হবে।

শেয়ারবাজার স্থিতিশীলতায় বিনিয়োগ আচরণের ভূমিকা

করোনাভাইরাসের বয়স প্রায় এক বছর হতে চলল, এর বিস্তার কবে থামবে তা এখনও কেউ হলফ করে বলতে পারে না।

দেশটা কি মগের মুল্লুক

বিদেশে টাকা পাচার হচ্ছে এ কথাটি বহু বছর ধরে শুনছি। আমাদের দেশের মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা যে বিদেশে পাচার হচ্ছে তা আদালতে প্রমাণও হয়েছে।

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা। সংক্ষেপে আরপি সাহা। একজন সংগ্রামী, আত্মপ্রত্যয়ী মানবসেবক।

করোনাকালীন শহীদ মিলন দিবস পালন

image