download

রোববার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২১

দেশ-বিদেশের প্রেক্ষাপটে বাংলা ভাষা

সাজেদুল চৌধুরী রুবেল

প্রতিটি ঐতিহ্যবাহী জাতি-ই তার নিজস্ব ভাষাকে দরদ দিয়ে লালন করে থাকে। এমনো কিছু দেশ রয়েছে যেখানে গিয়ে ইংরেজি ভাষায় কথা বললে বা কিছু জানতে চাইলে তারা মুখ ফিরেও তাকাতে চায় না। একবার ইউরোপের একটি দেশে বেড়াতে গিয়ে সে ধারণাই আমি পেয়েছি। কি পর্যটক, কি স্থায়ী বাসিন্দা কোন কিছুর তোয়াক্কাই তারা করেনা। আবার কখনো কখনো এও দেখা যায়, নেহায়েত প্রয়োজনে যদি ইংরেজির আশ্রয় নিতেই হয় তাহলে তাদের কথায় বা উচ্চারিত স্বরের মাধ্যমে স্বীয় জাতি সত্তার অস্তিত্ব ফুটিয়ে তোলে। ফ্রেন্স, ইটালিয়ান, পোলিশ কিংবা রাশিয়ানরা ইংরেজিতে কথা বললেও তাদের একটা নিজস্ব কণ্ঠস্বর (Ac-cent) বজায় রাখে যাতে করে সহজেই তারা তাদের নিজেদের জাতীয় পরিচয় তুলে ধরতে সক্ষম হয়। অর্থাৎ প্রয়োজনীয় মতবিনিময়ের আন্তর্জাতিক মাধ্যম হিসেবে ইংরেজিকে ব্যবহার করলেও তারা তাদের স্বীয় মাতৃভাষার কণ্ঠ স্বর বা Ac-cent কে পরিহার করে নিজেকে মেকি ইংলিশের রসাতলে ডুবিয়ে দেন না।

আমরা যারা প্রবাসে আছি তাদের অনেকের মধ্যে এ মেকি ভূতটা কাজ করে বেশ। নিজেকে স্থানীয়ভাবে ‘অতিযোগ্য’ করে তোলার মনমানসিকতায় নিজেদের স্বকীয় কণ্ঠস্বরকে বিকৃত করে তা গুলিয়ে ফেলে ইংলিশ নামক আগ্রাসনধর্মী ভাষাটির অতলান্তিকে। আমি ইংলিশকে খাটো করে দেখছি না বা শুদ্ধভাবে ইংলিশ বলা থেকে বিরত থাকতেও বলছি না। স্থান-কাল-পাত্র ভেদে বাংলা ব্যবহার করতে না পারলে ইংরেজিতে ভাব আদান প্রদান করেও শুধু মাত্র কণ্ঠস্বরের স্বকীয়তার মাধ্যমেই স্বীয় জাতীয়তাবাদের পরিচয় ঘটানো সম্ভব। কিন্তু দুঃখজনকভাবে বলতে হয়, ‘অতিযোগ্য’ বা ‘অতিআধুনিক’ মুদ্রা দোষে দুষ্ট হয়ে আমাদের প্রবাসীদের অনেকেই বরং উল্টো পথে হাঁটেন।

দু’বছর আগের কথা। নিউইয়র্ক প্রবাসী এক আইরিশ ভদ্রলোক। সেখানে তিনি একটি পত্রিকায় কর্মরত। এক চা সন্ধার দাওয়াতে তার সঙ্গে দেখা। যিনি আমাদের হোস্ট, তিনি হলেন ওই ভদ্রলোকের বড় বোন। প্রৌঢ়া এ মহিলা আমার স্ত্রীকে মেয়ের মতো স্নেহ করেন। সে সুবাদে তার প্রবাসী ভাইয়ের সঙ্গে আমাদের পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্যই মূলত এ চা সন্ধ্যার আয়োজন।

প্রায় এক দশকের মতো আয়ারল্যান্ডে বসবাস করার পরো আমার কথায় কোন আইরিশ Ac-cent পাননি। বিষয়টা তাকে বেশ অবাক করেছে। সে সূত্র ধরেই তিনি বললেন, ১৪ বছর ধরে আমি আমেরিকায়। কিন্তু এমেরিকান ইংলিশ আমাকে কাবু করতে পারেনি। আমি আমার স্বীয় ভাষার স্বকীয়তাকে হারাতে দেইনি। এ জন্য স্থানীয়দের সঙ্গে অনেক যুদ্ধ করতে হয়। তাতে কি! নিজের স্বাতন্ত্র ধরে রাখতে পারছি সেতো কম কথা নয়।’

আইরিশ ভদ্রলোকের উদাহরণটি টানলাম এ জন্যে যে, ওদের নিজস্ব ভাষা (আইরিশ) থাকলেও কেউ এ ভাষায় কথা বলে না। সবাই ইংরেজিতেই কথা বার্তা বলে। ব্রিটিশ প্রদত্ত ইংরেজি-ই তাদের আপন ভাষা। সে ভাষা প্রাপ্তির জন্য তাদের কোন যুদ্ধ করতে হয়নি। ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে পুলিশের গুলিতে কাউকে শহীদ হতে হয়নি। তারপরও ব্রিটিশ বা আইরিশ ইংলিশের পুরোনো ঐতিহ্য যেন আমেরিকান ইংলিশের কাছে মলিন না হয়ে যায় সে ব্যাপারে তারা সদা তৎপর।

আমাদের প্রবাসীরা বিভিন্ন দিবস বা উৎসব পালন করার মতো শোক ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ২১ ফেব্রুয়ারিকেও বেশ ঘটা করে পালন করেন। যুক্তরাজ্য, ইতালিসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশে শহীদ মিনার গড়ে তোলার গৌরবও অর্জন করেছেন। যেসব দেশ পিছিয়ে ছিল তারাও এখন আর কম এগিয়ে নেই। এ রকম অগ্রগামী দেশের মধ্যে আয়ারল্যান্ডও একটি। এখানেও একুশ পালিত হয় জমজমাটভাবে। কয়েক বছর আগে আয়ারল্যান্ডে গলওয়ে বাঙালি কমিউনিটি কর্তৃক সল্টহিল হোটেলে আলোচনা সভা পালন করতে গিয়ে কাটের তৈরি শহীদ মিনারে গাদা গাদা ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি যে সম্মান প্রদর্শন করা হয়েছিল তা সত্যি যেমন ছিল আবেগঘন মুহূর্ত, তেমনি মনোমুগ্ধকরও বটে। আইরিশ বাঙালি তথা নতুন প্রজন্মের জন্য ছিল যেন এক সাক্ষাৎ ইতিহাস।

রাজধানী ডাবলিনও পিছিয়ে নেই। আয়ারল্যান্ডে বসবাসরত সব বাঙালি ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে ‘আমার ভায়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গেয়ে প্রভাত ফেরির মাধ্যমে সমস্থ শহর ঘুরে বেড়ায়। উদ্দেশ্য, শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক স্থানীয়ভাবে দেশি-বিদেশি সবার কাছে এর মর্ম বাণী পৌঁছে দেয়া। যথাযত কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণের মাধ্যমে একটা শহীদ মিনার গড়ে তোলার চেষ্টা করা। মূলত এ ধরনের চেষ্টা বিশ্বের অনেক দেশেই বাঙালিরা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে হ্যাঁ যে সব দেশ এখনও অনেক পিছিয়ে, সে সব দেশে সরকারি উদ্যোগে হলেও শহীদ মিনার গড়ে তোলা অত্যাবশ্যক। একুশের চেতনাকে বহির্বিশ্বে সমুন্নত ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে শহীদ মিনারের বিকল্প নেই।

ভাষা দিবসকে সামনে রেখে প্রবাসীরা যা করছেন তা সবই সময়োপযোগী ও প্রশংসনীয় কার্যক্রম। কিন্তু ওই একটি বিশেষ দিনে কেবল র‌্যালি, সভা সমাবেশের ভেতরেই যেন একুশের চেতনা আটকে না থাকে সে দিকে আমাদের সবিশেষ নজর দিতে হবে। বাঙালিয়ানা কণ্ঠ বজায়ে রেখেও যে শুদ্ধ ইংরেজি বলা সম্ভব তাও দরদ দিয়ে উপলব্ধি করতে হবে। মেকি ইংলিশে বলীয়ান হয়ে মাতৃভাষার মর্মমুলে যেন আমরা নিজের অজান্তেই কেউ আঘাত না হানি।

যারা প্রবাসে কর্মরত তারা ব্যক্তিগতভাবেও বিভিন্ন উপায়ে বাংলা ভাষার পরিচিতি তুলে ধরতে পারেন। যে কোন দেশেই একজন প্রবাসী বসবাস করুননা কেন, সেখানে ভিন্ন ভিন্ন দেশ থেকে আগত বিভিন্ন সহকর্মীর সঙ্গে তার সাক্ষাৎ মেলে। দিনে দিনে ভাব বা সখ্য গড়ে উঠে। তার সুবাদে একজন প্রবাসী ব্যক্তি যদি ১০ জন ভিনদেশীর কাছে আমাদের ভাষার ঐতিহ্য, একুশের অহঙ্কার ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার গৌরব বিশ্লেষণ করে বুঝিয়ে দিতে সক্ষম হন সে ক্ষেত্রে প্রচার ও প্রসারের মাত্রা এক বিরাট পরিসংখানে গিয়ে দাঁড়াতে পারে। ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে, এমন ইতিহাস কি পৃথিবীর ইতিহাসে আরেকটি আছে?

অনেক প্রবাসী মা বাবা আছেন যারা সন্তান-সন্ততির সঙ্গে বাসা বাড়িতেও কথা বলার ক্ষেত্রে ইংরেজিকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। একুশের চেতনাকে সমুন্নত রেখে বাংলা ভাষার গৌরবোজ্জ্বলকে ধরে রাখতে হলে এ ধ্যান-ধারণা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। শুধু তাই নয়, বিদেশে জন্ম নেয়া এমন অনেক শিশু কিশোর আছে যারা ভাঙা ভাঙা বাংলা বলতে পারলেও লেখাপড়ার ক্ষেত্রে একেবারেই অক্ষম। সে অক্ষমতা তাদের নিজের দোষে নয়। অনেক মা বাবার ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও কর্ম ব্যস্ততা বা সীমাবদ্ধতার দরুন বাংলায় হাতেখড়ি দিয়ে উঠতে পারেন না। কিছু বাংলা মিশনারি স্কুল থাকলেও সেগুলোতে সব ছেলেমেয়েদের উপস্থিতি সম্ভব হয়ে উঠে না। তাছাড়া স্থানীয় স্কুলগুলোতেও বাংলা শিক্ষা দানের কোন ব্যবস্থা না থাকায় প্রবাসী ছেলেমেয়েদের এ ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকতে হচ্ছে।

এ ক্ষেত্রে এলাকাভিত্তিক বাংলা মিশনারি স্কুল গড়ে তুলতে ব্যর্থ হলে প্রবাসী অভিবাবকরা জরো হয়ে বাংলা শিক্ষা প্রচলনের জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ বরাবর আবেদন করতে পারেন। বাংলাকে পাঠ্যসূচির আওতাভুক্ত করতে হবে এমন কোন কথা নেই। কর্তৃপক্ষ যাতে এমন একজন শিক্ষক নিয়োগ করেন যিনি শুধু বাংলা ভাষা পাঠ দানের ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা পালন করবেন। এছাড়াও ডিজিটাল যুগের সুযোগ নিয়ে বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে নিজস্ব মতামত, জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দেয়া যায় অতি সহজেই। শিক্ষা দানের ক্ষেত্রেও কেউ কেউ এ পন্থা অবলম্বন করতে পারেন। অন লাইনভিত্তিক “এসো বাংলা শিখি” জাতীয় প্রোগ্রাম চালু করা যেতে পারে। স্কাইপের মাধ্যমে অতি সহজেই প্রাইভেট শিক্ষকের কার্যক্রম চালানো সম্ভব। ঘরে বসেও বিশ্বের যে কোন দেশে বসবাসরত ইচ্ছুক ছেলেমেয়েদের বাংলা শিক্ষা প্রদান করা যেতে পারে। অনেকে এটাকে আর্থিক উপার্জনের একটি আংশিক উপায় হিসেবেও বেছে নিতে পারেন।

পৃথিবীর কোন ভাষাই সম্ভবত আঞ্চলিক ভাষার প্রভাব মুক্ত নয়। এমনকি ইংরেজি ভাষাতেও রয়েছে আঞ্চলিকতার ব্যপক প্রভাব। হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী আমাদের মাতৃভাষা বাংলাও এর প্রভাবমুক্ত নয়। সন্দেহ নেই, আঞ্চলিক ভাষা যোগ হয়ে কখনও কখনও মূল ভাষাকে অলঙ্কারের সৌন্দর্যে সমৃদ্ধ করে তোলে। কিন্তু সে আঞ্চলিক ভাষা যদি মূল ভাষার প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়াতে চায় সেখানেই যতো আশঙ্কা। আজকাল দেশ বিদেশের অনেক ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে এর ব্যাপক প্রভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। বিশেষ করে প্রবাসে কিছু স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলে বিভিন্ন টক শো, লাইভ শো বা প্রচারিত নাটকের ক্ষেত্রে আঞ্চলিক ভাষার বেশ প্রচলন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অদূর ভবিষ্যতে এ মাত্রা ছাড়িয়ে প্রিন্ট মিডিয়াতেও এক দিন তা পা ফেলতে পারে বলে আশঙ্কা করা হলেও একেবারে অমূলক বলা যাবে না।

কথ্য ভাষার অন্য রূপ আঞ্চলিক ভাষা। সে অর্থে আমরা কেউ এর বাইরে নই। তাই আঞ্চলিক ভাষার প্রতি গভীর মমতা ও শ্রদ্ধাবোধ রেখেই বলছি, জাতীয় অঙ্গনে শুদ্ধ বাংলা বিকাশের ক্ষেত্রে আঞ্চলিক ভাষা যেন কণ্টক হয়ে না দাঁড়ায় সে বিষয়টা আমাদের সবার মাথায় রাখা উচিত। অন্যথায় আঞ্চলিক ভাষাও কোন দিন নিজ নিজ অস্তিত্ব বা স্বীকৃতির প্রশ্নে আত্মকলহে লিপ্ত হয়ে যেতে পারে। সুতরাং সব সীমাবদ্ধতা বা প্রতিবন্ধকতা থেকে বেরিয়ে এসে আমাদের মা মাটি ও প্রকৃতির ভাষা “বাংলাকে” এক মহা নক্ষত্রে রূপান্তরিত করার চেষ্টায় ব্রত হওয়া সবারই উচিত। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী বাংলা ভাষার যে আবগঘন জোয়ার, একে কাজে লাগানোর প্রকৃষ্ট সময় এখনি।

[লেখক : আয়ারল্যান্ড প্রবাসী কবি,

প্রাবন্ধিক ও কলামিস্ট]

Shajed70@yahoo.com

শ্রেণীকক্ষে মূল্যায়ন জটিল তবে আনন্দের কাজ

শ্রেণীকক্ষে মূল্যায়ন একটি আর্ট, একটি বিশেষ ধরনের বিজ্ঞান। এতে একজন শিক্ষকের আগ্রহ থাকতে হবে।

শহীদ মিনার : প্রতিবাদের মঞ্চ

ভাষা দিবস না থাকলে বাঙালির জীবনে ফেব্রুয়ারি মাসের আলাদা কোন গুরুত্ব থাকতো না।

আমাদের নিঃস্ব করে চলে যাচ্ছেন সৎ ও সাহসী মানুষেরা

image

গুরু রবিদাসজীর জন্মজয়ন্তী

পৃথিবীতে যেসব মানুষ শ্রেণীহীন সমাজ ব্যবস্থার কথা চিন্তা করেছেন সন্ত রবিদাসজী তাদের মধ্যে অগ্রসর।

জাতীয় ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস

মানবদেহ যখন রক্তের সব গ্লুকোজ ভাঙতে ব্যর্থ হয় তখনই ডায়াবেটিস হয়।

মাতৃভাষা বাংলা : আজকের পরিপ্রেক্ষিত

মাতৃভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার ভিতর দিয়ে মহান একুশের আন্দোলন আজ দেশ-কালের সীমা অতিক্রম করে সাম্প্রদায়িকতা, মৌলবাদ, ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে একটি জ্বলন্ত প্রতিবাদ হিসেবে গোটা বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের আদর্শ।

জমিজমার জাল দলিল শনাক্তকরণের উপায় ও বাতিলের নিয়মাবলী

জমি কেনাবেচার ক্ষেত্রে সাবধান না হলে পরবর্তীতে দীর্ঘদিন নানা ঝামেলা পোহাতে হয়।

বিচারপ্রার্থী নারী ও আদালত

নারীর নানাবিধ নির্যাতন, ধর্ষণ, হত্যা দেশে-বিদেশে অব্যাহত আলোচনার বিষয়।

স্মৃতিতে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ

image

দয়া করে বাস্তবসম্মত আশ্বাস দিন

আশাবাদ, আশ্বাস এবং স্বপ্নকে কখনও জবাবদিহি করতে হয় না। এ এক নির্মাণশৈলী জাত সুবিধা।

ভাষা আন্দোলনে গণমাধ্যমের ভূমিকা

ভাষা আন্দোলনের শুরু ১৯৪৮ সালে। ঢাকায় তখন প্রধান দৈনিক পত্রিকা আজাদ এবং ইংরেজি মর্নিং নিউজ।

রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় মুক্ত হত্যা মামলার আসামিরা : সাংবিধানিক ক্ষমতা প্রয়োগের নজির!

বাংলাদেশে বরাবরই সরকারের মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য এবং শীর্ষ আমলাদের মুখ থেকে একটি বহুল কথিত বাক্য হচ্ছে

যাদের টিকা নেয়া জরুরি

কোভিড-১৯ একটি ছোঁয়াচে রোগ, যা বিশ্বের প্রায় সবকটি দেশেই মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ে।

আলী আহমদ চুনকা : সাধারণ মানুষের নেতা

image

আহমদ শরীফ : প্রেরণার উৎস

image

বাংলাদেশ বেতারের পথচলা

১৩ ফেব্রুয়ারি বিশ্বব্যাপী পালিত হয়েছে জাতিসংঘ ঘোষিত ১০ম বিশ্ব বেতার দিবস।

রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই

মাত্র ক’দিন আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উচ্চ আদালতে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলায় রায় লেখার আহ্বান জানিয়েছেন। বর্তমানে দু-একজন

‘বঙ্গবন্ধু’ ও বাংলাদেশ

এই ফেব্রুয়ারি মাসের ২৩ তারিখটি প্রতি বছর গভীরভাবে স্মরণ করি। দিবসটি আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ দিন। ১৯৬৯ সালের এই দিনে বাংলার

একুশের চেতনা শানিত হোক চিত্তে ও চৈতন্যে

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি-এই গানটি আমাদের শিহরিত করে আর জাগরিত করে। আমাদের

শরীফ মিয়ার ক্যান্টিন, টিএসসি আর প্রান্তিকজনের ইতিহাস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে নতুন ভবন নির্মাণ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়া

মানসম্মত কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই

যে শিক্ষা গ্রহণ করে শিক্ষার্থীরা বাস্তব জীবনে ব্যবহার করে কোন একটি নির্দিষ্ট পেশায় নিযুক্ত হতে পারে তাই কারিগরি শিক্ষা।

বিশ্বের প্রথম নারী ভাষাশহীদ

image

রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিল

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ডে মদত দেয়ার কারণে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা এবং মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডারদের

ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী

ভাষা আন্দোলন নিয়ে লেখালেখির অধিকাংশই বর্ণনামুখী অর্থাৎ ভাষা আন্দোলনের সূচনা থেকে একুশে ফেব্রুয়ারিতে এসে এর পরিসমাপ্তি।

সাঁওতালি ভাষার যাত্রা মসৃণ হোক

সাঁওতাল ভাষার বর্ণমালা বির্তক যেন কোনভাবেই পিছু ছাড়ছে না। দীর্ঘ বছরের অর্জন এখন আমার দেশের সাঁওতালরা তিনটি বর্ণমালাকে হাজির করেছেন।

বরাক উপত্যকার বাংলা ভাষা আন্দোলন

১৯ মে। ভাষার ইতিহাসে এক রক্তাক্ত অধ্যায়ের দিন। ১৯৬১ সালের ১৯ মে ভারতের বরাক উপত্যকার (বরাক ভ্যালি) কাছাড় জেলার শিলচরের ১১ জন বাঙালি মায়ের ভাষা রক্ষার জন্য তথা

পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি- মমতার মোকাবিলায় বাম-কংগ্রেসের বিকল্প কী

বাঙালিবিরোধী রাজনীতিতে আসীন মানুষদের ইউরোপের নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতির আদলে দেখতে একদম অভ্যস্ত নয়।

চরাঞ্চলে মিষ্টি কুমড়া আবাদে ‘স্যান্ডবার’ প্রযুক্তি

image

কেমন রাজধানী বানিয়েছি আমরা

মেগাসিটি ঢাকার পাঁচতলা ফ্ল্যাটের কাচের জানালা গলিয়ে বাইরে তাকাতে হতবাক হয়ে যাই।

করোনাকালের চলচ্চিত্র ভাবনা

অতি সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নের জন্য এক হাজার কোটি টাকার তহবিল ঘোষণা করেছেন।

শিক্ষা আইন-২০২০ : নোট-গাইড বনাম সহায়ক বই

শিক্ষা আইন-২০২০ এর খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। ছোটখাটো বানান সংশোধন ছাড়া আর কোন পরিবর্তন করা হয়নি।

বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী : সমৃদ্ধির পথে যাত্রা

বড় বড় অবকাঠামো নির্মাণের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশকে সহায়তা করে আসছে চীন। যা, দেশ দুটির সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করেছে।

ভাষাসংগ্রামী : সুসংবাদ-দুঃসংবাদ

ভাষা-শহীদ ও ভাষা-সৈনিকদের তত্ত্ব-তালাশ নেওয়ার, ভাষা আন্দোলনের

সত্য বলার বাতিক

১৯৬৬ সালে ইংরেজ পণ্ডিত অলউইন রাডক নানা দলিলপত্র ঘেঁটে মত দেন ভেনিসিও নাবিক জুয়ান শ্যাবতো ১৪৭০ সালের দিকেই আমেরিকায়

রেলের টেকসই উন্নয়নে তদারকি প্রয়োজন

রেলের শনৈ শনৈ উন্নতিতে আমি ভীষন খুশি। ট্রেনে ভ্রমণ পিয়াসী সবার একই রকম খুশি হওয়ার কথা। এ বৃদ্ধ বয়সে পরিবারসহ ট্রেনে

ভাষা আন্দোলনে মুন্সীগঞ্জ

১৯৪৮ সালে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা উর্দু ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে বাংলার প্রতিটি অঞ্চলের মতো মুন্সীগঞ্জেও হয় আন্দোলন, হয় নানা ধরনের সভা সমাবেশ।

ছয় দফা : স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা

আগরতলা মামলার মাধ্যমে বাঙালি জাতির জাগরণ এবং শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ও জনপ্রিয়তা শীর্ষে পৌঁছে যায়। হোসেন শহীদ

রাজনীতি এখন কাদের হাতে?

সুদীর্ঘ রাজনৈতিক আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন এই ভূখণ্ড ৫০ বছর পরে এখন রাজনীতিহীন

মায়ানমারের সেনা অভ্যুত্থান ও ঘটনাপ্রবাহ

২০১১ সালে দীর্ঘদিনের অন্তরীণ নেত্রী অং সান সুচির দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি) ওই সামরিক বাহিনীর মৌন সম্মতি

আদা-হলুদে স্বনির্ভর হতে করণীয়

২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশে আদা আমদানি করতে হয় ১ লাখ ২৮ হাজার ৬০৭ মেট্রিক টন। যদি প্রতি কেজি আমদানিতে ১০০ টাকা ব্যয়

সোশ্যাল মিডিয়ার কাছে নতিস্বীকার করেছে মূলধারার গণমাধ্যম

image

চীনের প্রভাব কাটাতে রাশিয়ান অস্ত্রে ঝোঁক মায়ানমারের

মায়ানমার সেনাবাহিনীর সর্বশেষ অভ্যুত্থানের শুরুতেই টেলিভিশন ক্যামেরায় সামরিক কনভয়ের যে দৃশ্য ধরা পড়ে তাতে আরেকটি পার্শ্বদৃশ্য ছিল স্পষ্ট।

বাংলার ক্রিকেটের আদিপুরুষ সারদারঞ্জন

image

লোকশিল্পী বীরেন্দ্রনাথ রায়

image

মায়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান

image

‘টিকা’ টিপ্পনী

image

অর্থনৈতিক উন্নয়নের অগ্রযাত্রা

বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতিতে অনেক দেশে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিলেও বাংলাদেশ তা অনেকটাই এড়াতে পেরেছে।

পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন ভোট ও দক্ষিণ এশিয়া

বছরখানেক আগে পর্যন্ত অনেকের মনেই প্রশ্ন ছিল বিজেপি কি পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতা দখলের বিষয়ে সত্যিই সিরিয়াস?

শব্দের যন্ত্রণা! যন্ত্রণার শব্দ!

শুক্রবার কাল প্রায় সারা রাতই ঘুম হয়নি। এমনিতেই আমার ঘুমের খুব একটা সমস্যা নেই কিন্তু রাত ২টা অবধি উচ্চশব্দে গান ও চিৎকারের কারণটাই মুখ্য।

কুষ্ঠ নির্মূলে আমাদের করণীয়

বিগত ৩১ জানুয়ারি দেশজুড়ে বিভিন্ন কর্মসূচি ও আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত হলো।

মধুপুরের বন-মাটি

image

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর চেয়ে স্যাটেলাইট-২ মহাকাশে পাঠানো অনেক সহজ হবে।

এত হরিণের চামড়া যায় কোথায়?

image

চেনা চেনা নিস্তব্ধ মুখ, অচেনা সময়

এক দ্রৌপদী এ সমাজের মেয়েদের মতো কোন সাধারণ মেয়ে ছিলেন না। দ্রুপদ রাজার যজ্ঞের অগ্নি থেকে তার জন্ম।

‘গোয়াল আপনার, গরু আমাদের’

যশোর সদর উপজেলার গাইদগাছি গ্রাম থেকে কেশবপুর উপজেলার ভান্ডারখোলা অনেক দূরের পথ।

প্লাস্টিক পণ্য : গুণগতমান নিশ্চিত হলে রপ্তানিতে গতি বাড়বে

দেশের আনাচে-কানাচে অনেক পণ্য উৎপাদিত হচ্ছে, যেগুলো আবার বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে।

মায়ানমারে সেনাশাসন : সু চি, যুক্তরাষ্ট্র, চীন এবং জাতিগত সংঘাত

image

কোন পথে গণতন্ত্র

ফ্রান্সের একজন খ্যাতনামা জেনারেল ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফ্রেঞ্চ ফিফথ রিপাবলিকের প্রতিষ্ঠাতা চার্লস দ্য গলের অবিস্মরণীয় একটি উক্তি স্মরণ করতে চাই।

সুন্দরবন রক্ষায় বাঘকে বাঁচাতে হবে

image

নির্বাচনে অনিয়ম

image

আবছা গণতন্ত্রের দেশে ফের বিপর্যয় ও সু চির রিমান্ড

image

মমতার ‘জয় বাংলা’ স্লোগানের রাজনৈতিক তাৎপর্য

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদিন অটলবিহারী বাজপেয়ীর মন্ত্রিসভায় ছিলেন

‘বিশ্বাসযোগ্য’ নির্বাচনের পথ খুঁজে পেতে হবে ‘আপনাদেরই’

image

নবায়নযোগ্য জ্বালানিই আগামীর চালিকাশক্তি

গোটা বিশ্ব বর্তমানে জলবায়ু পরিবর্তন আর পরিবেশ নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন।

একটি আন্দোলন : একটি পর্যালোচনা

image

মায়ানমারে আবারও দন্ডমুন্ডের কর্তা সেনাবাহিনী

image

বারির অনুপুষ্টি সমৃদ্ধ মসুর ডাল

বহুকাল থেকেই এ দেশে নানা ধরনের ডালের চাষ হয়ে আসছে। ডালে জাতভেদে বিদ্যমান আমিষ (২০-২৮ শতাংশ) এবং পর্যাপ্ত অ্যামিনো অ্যাসিডসহ নানাবিধ পুষ্টি উপাদানের কারণেই আমাদের দৈনন্দিন খাদ্য সংস্কৃতিতে ডাল এক গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে।

ভ্যাকসিন নিয়ে যত চিন্তা-দুশ্চিন্তা

করোনাভাইরাসের বিশ্বব্যাপী বিস্তার সত্ত্বেও বাংলাদেশের জনসংখ্যার একটি বিরাট অংশ এখন পর্যন্ত সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।

শিক্ষার্থী ভর্তির তথ্য শিক্ষা ক্ষেত্রে আরও একটি অশনি সংকেত

মাউশি সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয়ে পাঁচটি শর্ত দিয়ে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় প্রথম থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তির নির্দেশনা দিয়েছিল।

বাংলার ক্রিকেটের আদিপুরুষ সারদারঞ্জন

image

লোকশিল্পী বীরেন্দ্রনাথ রায়

image

মায়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান

image

‘টিকা’ টিপ্পনী

image

অর্থনৈতিক উন্নয়নের অগ্রযাত্রা

বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতিতে অনেক দেশে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিলেও বাংলাদেশ তা অনেকটাই এড়াতে পেরেছে।

পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন ভোট ও দক্ষিণ এশিয়া

বছরখানেক আগে পর্যন্ত অনেকের মনেই প্রশ্ন ছিল বিজেপি কি পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতা দখলের বিষয়ে সত্যিই সিরিয়াস?

শব্দের যন্ত্রণা! যন্ত্রণার শব্দ!

শুক্রবার কাল প্রায় সারা রাতই ঘুম হয়নি। এমনিতেই আমার ঘুমের খুব একটা সমস্যা নেই কিন্তু রাত ২টা অবধি উচ্চশব্দে গান ও চিৎকারের কারণটাই মুখ্য।

কুষ্ঠ নির্মূলে আমাদের করণীয়

বিগত ৩১ জানুয়ারি দেশজুড়ে বিভিন্ন কর্মসূচি ও আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত হলো।

মধুপুরের বন-মাটি

image

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর চেয়ে স্যাটেলাইট-২ মহাকাশে পাঠানো অনেক সহজ হবে।

এত হরিণের চামড়া যায় কোথায়?

image

চেনা চেনা নিস্তব্ধ মুখ, অচেনা সময়

এক দ্রৌপদী এ সমাজের মেয়েদের মতো কোন সাধারণ মেয়ে ছিলেন না। দ্রুপদ রাজার যজ্ঞের অগ্নি থেকে তার জন্ম।

‘গোয়াল আপনার, গরু আমাদের’

যশোর সদর উপজেলার গাইদগাছি গ্রাম থেকে কেশবপুর উপজেলার ভান্ডারখোলা অনেক দূরের পথ।

প্লাস্টিক পণ্য : গুণগতমান নিশ্চিত হলে রপ্তানিতে গতি বাড়বে

দেশের আনাচে-কানাচে অনেক পণ্য উৎপাদিত হচ্ছে, যেগুলো আবার বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে।

মায়ানমারে সেনাশাসন : সু চি, যুক্তরাষ্ট্র, চীন এবং জাতিগত সংঘাত

image

কোন পথে গণতন্ত্র

ফ্রান্সের একজন খ্যাতনামা জেনারেল ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফ্রেঞ্চ ফিফথ রিপাবলিকের প্রতিষ্ঠাতা চার্লস দ্য গলের অবিস্মরণীয় একটি উক্তি স্মরণ করতে চাই।

সুন্দরবন রক্ষায় বাঘকে বাঁচাতে হবে

image

নির্বাচনে অনিয়ম

image

আবছা গণতন্ত্রের দেশে ফের বিপর্যয় ও সু চির রিমান্ড

image

মমতার ‘জয় বাংলা’ স্লোগানের রাজনৈতিক তাৎপর্য

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদিন অটলবিহারী বাজপেয়ীর মন্ত্রিসভায় ছিলেন

শামস কিবরিয়ার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

image

সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে সতর্ক থাকছি তো?

বৃহস্পতিবার তথ্য সুরক্ষা দিবস। সাইবার অপরাধের কথা আমরা প্রায়ই শুনে থাকি।

ভ্যাকসিন নিলাম আপনিও নিন

image

ছয় দফা : স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা

চার ছয় দফাকেন্দ্রিক নির্যাতন চলতেই থাকে : বঙ্গবন্ধু ছয় দফা ঘোষণা করে বস্তুত

মাইকেল মধুসূদন বাংলা কাব্যসাহিত্যের প্রথম দ্বার উন্মোচনকারী

image

প্রাণের স্পন্দন ফেরাবে করোনার টিকা

image

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক

সামাজিক নিরাপত্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলাসহ দেশের যে কোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনগণের পাশে এসে দাঁড়ানো এবং প্রয়োজনে তাদের সক্রিয়ভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করার পরিকল্পনা নিয়ে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা দল গঠন করা হয়েছে।

কমাতে হবে সমুদ্রদূষণ

মহাবিশ্বের অন্যতম প্রাকৃতিক শক্তি ও সম্পদের আধার হচ্ছে সমুদ্র। একদিকে যেমন পৃথিবীতে মানুষের বংশ-বিস্তার ক্রমশ বাড়ছে অন্যদিকে সমুদ্রের ওপর মানুষের নির্ভরশীলতাও বাড়ছে।

পঞ্চাশ বছর ধরে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির অপেক্ষায় এক মুক্তিযোদ্ধা

সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকে মর্মস্পর্শী খবর প্রকাশিত হয়েছে। খবরটির শিরোনাম ছিল ‘যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সেবক সুবল ভাই জীবনসায়াহ্নে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চান’।

পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন ভোট এবং বামপন্থিরা

image

তেভাগা আন্দোলনের পুরোধা

image

মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে কাটাছেঁড়া আর কত দিন চলবে?

স্বাধীনতার ৪৯ বছরেও এখনও মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিক তালিকা করা সম্ভব হয়নি। সংশোধন করা হয়েছে ছয়বার।

বাইডেনের জন্য আরও বেশি বিপজ্জনক বিশ্ব রেখে গেছেন ট্রাম্প

image

নতুন নতুন বিধিতে বিব্রত সঞ্চয়পত্র ক্রেতারা

image

জেলা শিল্পকলা একাডেমি গঠনতন্ত্রের অগণতান্ত্রিক সংশোধনী কেন?

বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীর কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত। অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও গত ৯ মাস ধরে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে।

চেতনায় শহীদ আসাদ

image

ছয় দফা : স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা

image

শুভ জন্মদিন, নির্মূল কমিটি

পুরো নাম ‘একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি’, একটি সংগঠনের জন্য নামটি যথেষ্ট

পাটশিল্পকে উৎসাহিত করুন

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্যমতে বাংলাদেশ চলতি অর্থবছর ২০২০-২১ সালের প্রথম মাস তথা জুলাইয়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি করে ৩৯১

জমির রেকর্ড সংশোধনে মোকদ্দমা ও পদ্ধতিগত জটিলতা এড়ানোর উপায়

দেশে লাখ লাখ রেকর্ড সংশোধনের মোকদ্দমা নিষ্পত্তির অপেক্ষায় রয়েছে। সরকারি কর্মকর্তাদের অসহযোগিতা, আদালতে দীর্ঘসূত্রতা সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় বিচারিক কর্তৃপক্ষের অভাবে এসব মামলায় সাধারণ মানুষের ভোগান্তির যেন শেষ নেই।