download

দেবীর আগমনে মঙ্গলের প্রত্যাশা

গোপাল অধিকারী

image

ঋতু বদলের ধারাবাহিকতায় বিদায় নিয়েছে শরৎকাল। তবে শরৎ আভায় ছেয়ে আছে মহাকাল। আকাশ ছুঁয়েছে যেন কাশফুল। স্থায়ী-অস্থায়ী সকল মন্ডপে আওয়াজ তুলেছে ঢাকী। ড্যাং ড্যাডাং ড্যাং ড্যাডাং কাঁইনানা কাঁইনানা, ট্যাং ট্যাটাং ট্যাং ট্যাটাং। চন্ডীপাঠ চলছে। মা আসছেন। পূজা নেবেন সবার তরে। বিভাজন রেখা সীমানা পেরিয়ে। মা যেন সবকিছুর ঊর্ধ্বে। বাঙালির ঘরে ঘরে মা আসেন বিশ্বলয়ে।

শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গোৎসব। পঞ্জিকা অনুযায়ী, ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠী তিথিতে হবে বোধন। পরদিন সপ্তমী পূজার মাধ্যমে শুরু হবে দুর্গোৎসবের মূল আচার-অনুষ্ঠান। ২৬ অক্টোবর মহাদশমীতে বিসর্জনে শেষ হবে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা।

এ বছর মহালয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৭ সেপ্টেম্বর। পঞ্জিকার হিসাবে এবার আশ্বিন মাস ‘মল মাস’, মানে অশুভ মাস। সে কারণে এবার আশ্বিনে দেবীর পূজা হচ্ছে না। পূজা হচ্ছে কার্তিক মাসে। সেই হিসাবে এবার দেবী দুর্গা ‘মর্ত্যে আসছেন’ মহালয়ার ৩৫ দিন পরে।

দুর্গা নামের বুৎপত্তিগত অর্থ যিনি দুর্গ অর্থাৎ সংকট হতে ত্রাণ করেন। শাস্ত্রে ‘দুর্গা’ শব্দটির একটি ব্যাখ্যা রয়েছে। তাতে বলা হয়েছে ‘দুর্গা’র ‘দ’ অক্ষর দৈত্যনাশক, ‘উ-কার’ (ু) বিঘ্ননাশক, ‘রেফ’ (র্) রোগনাশক, ‘গ’ অক্ষর পাপনাশক ও ‘আ-কার’ (া) ভয়-শত্রুনাশক। অর্থাৎ দৈত্য, বিঘ্ন, রোগ, পাপ ও ভয়-শত্রুর হাত থেকে যিনি রক্ষা করেন, তিনিই দুর্গা।

পন্ডিতরা বলছেন, শরৎকালের প্রথম শুক্লপক্ষের প্রতিপদ তিথিতে মহালয়ার দিনে দেবীঘট স্থাপন করে শারদীয় দুর্গোৎসবের সূচনা হয়। শরতকালের এ পক্ষকে দেবীপক্ষও বলা হয়ে থাকে। শাস্ত্রে আছে, দেবীদুর্গা হিমালয়বাসিনী দক্ষরাজার কন্যা। পিতৃগৃহে আগমন উপলক্ষে ষষ্ঠীর দিনে বিজয় শঙ্খধ্বনির মাধ্যমে মর্ত্যলোকে মা দুর্গার আগমনকে স্বাগত জানানো হয়। এটিই দেবীর বোধন। এরপর যথাক্রমে মহাসপ্তমীতে নবপত্রিকা প্রবেশ, অষ্টমীতে কুমারী ও সন্ধিপূজা এভাবে নবমী পার হয়ে দশমীর দিনে দেবী বিসর্জন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পূজার আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হলেও পক্ষকাল চলে বিজয়া পুনর্মিলনী উপলক্ষে বিভিন্ন লোকজ উৎসব।

দেবী দুর্গার সৃষ্টি-রহস্যসমৃদ্ধ শাস্ত্রগ্রন্থ শ্রীশ্রী চন্ডীতে উল্লেখ আছে, ব্রহ্মা মহিষাসুরের তপস্যায় সন্তুষ্ট হয়ে তাকে বর দিয়েছিলেন কোন পুরুষ তোমাকে বধ করতে পারবে না। ব্রহ্মার বর পেয়ে বেপরোয়া হয়ে ওঠে মহিষাসুর। একে একে বিতাড়ন করেন স্বর্গের সব দেবতার। উপায়ন্তর না পেয়ে দেবতারা অবশেষে ব্রহ্মার স্মরণাপন্ন হন। কিন্তু কী করবেন তিনি। নিজের দেয়া বর ফেরাবেন কী করে? এ অবস্থায় শিব ও অন্যান্য দেবতা সঙ্গে নিয়ে ব্রহ্মা যান স্বয়ং বিষ্ণুর কাছে। বিষ্ণু তাদের দুর্দশার কথা শুনে দেবতাদের বলেন, দেবতাদের নিজ নিজ তেজকে জাগ্রত করতে হবে। তখন দেবতাদের সমবেত তেজের মিলনে আবির্ভূত হবে এক নারী মূর্তি। সেই নারীই বিনাশ করবে মহিষাসুরকে। বিষ্ণুর থেকে সবকিছু অবগত হয়ে দেবতারা হিমালয়ের পাদদেশে পুণ্যসলিলা গঙ্গার সামনে এসে প্রার্থনা শুরু করেন। দেবতাদের সম্মিলিত তেজরাশি থেকে দশদিক আলোকিত করে আবির্ভূত হন এক নারীমূর্তি। ইনিই দেবী দুর্গা নামে অভিহিত। তিনি আবির্ভূত হন দশভুজারূপে। দেবতাদের সব দুর্গতি বিনাশ করায় দুর্গা দুর্গতিনাশিনী, মহিষমর্দিনী এবং অসুরদলনী নামেও পরিচিত। বৈদিক সূত্রে এ দেবীর উল্লেখ আছে। পুরাকালে দুর্গাপূজার প্রচলন ছিল বসন্তকালে। এ সময় দেবী দুর্গা ‘বাসন্তী’ নামে পূজিত হতেন যা এখনও প্রচলন আছে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, সেদিন ‘কন্যারূপে’ বাপের বাড়ি অর্থাৎ মর্ত্যে আসেন দেবী দুর্গা। অসুর শক্তি বিনাশকারী দেবী দুর্গার আরাধনার মধ্য দিয়ে সমাজ থেকে দূর হবে সব পাপ। সমাজে ফিরে আসবে শান্তি। এ বছর দেবী দুর্গা আসছেন ঘোটকে। এতে রবি শস্য ভালো হবে। দেবী বিদায়ও নেবেন ঘোড়ায় চরে। এতে দূর হবে সব অসুখ বিসুখ। দেবীর যাত্রার সময় সব অসুখ বিসুখ ধূলোর সঙ্গে উড়িয়ে নিয়ে যাবেন।

মহিষাসুরমর্দিনী দুর্গার পরিবারসমন্বিতা মূর্তির প্রচলন হয় ষোড়শ শতাব্দির প্রথম পাদে। পরিবারসমন্বিতা এই মূর্তিকাঠামোর মধ্যস্থলে দেবী দুর্গা সিংহবাহিনী ও মহিষাসুরমর্দিনী। তার উপরিভাগে ধ্যানমগ্ন মহাদেব। মহিষাসুরমর্দিনীর ঠিক ডানপাশে উপরে দেবী লক্ষ্মী ও নিচে গণেশ; বামপাশে উপরে দেবী সরস্বতী ও নিচে কার্তিক। পরিবারসমন্বিতা এ রূপে দুর্গাপূজা প্রথম অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশের রাজশাহী জেলার তাহিরপুরে। কংসনারায়ণের পূজার পরপরই আড়ম্বরপূর্ণ দুর্গাপূজার প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন অবিভক্ত বাংলার জমিদাররা। নতুন আঙ্গিকের এই পূজার শাস্ত্রীয় ও সামাজিক আয়োজন অত্যন্ত ব্যয়বহুল হওয়ায় দুর্গাপূজা পরিনত হয় জমিদারদের উৎসবে। জমিদারি প্রথা বিলোপের পর দুর্গোৎসবে জমিদারদের অংশগ্রহণের হার কমে আসে স্বাভাবিকভাবেই। নব্য ধণিকশ্রেণীর উদ্ভবের পরিপ্রেক্ষিতে দুর্গোৎসব আয়োজকগোষ্ঠীতে যুক্ত হয় অনেক নতুন মুখ। তবে প্রতিটি দুর্গোৎসবই তখন আয়োজিত হত সম্পূর্ণ একক উদ্যোগে। আনুমানিক ১৭৯০ খ্রিস্টাব্দে একটি ঘটনা ঘটে অবিভক্ত বাংলার পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার গুপ্তিপাড়ায়। গুপ্তিপাড়ার একটি ধনী পরিবারের আকস্মিক অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের ফলে অনিশ্চয়তার সম্মুখীন হয় বাড়িটির বাৎসরিক পূজার আয়োজন। গুপ্তিপাড়ার ১২ জন বন্ধুস্থানীয় যুবক তখন এগিয়ে আসে সামনে। এই ১২ জন ‘ইয়ার’ বা বন্ধু সংঘবদ্ধভাবে গ্রহণ করে পূজাটির দায়িত্ব। গুপ্তিপাড়ার এই পূজাটি মানুষের কাছে পরিচিত হয় ‘বারোইয়ারি’ বা বারোয়ারি পূজা নামে। অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষ দিকে বাংলায় দুর্গাপূজার সংখ্যা বাড়ল ব্যাপকহারে। তারপর থেকেই বিভিন্ন বারোয়ারী মন্দিরে অনুষ্ঠিত হয় উৎসবটি।

পূজা মানেই আনন্দ, পূজা মানেই উৎসব। ধর্ম আলাদা হলেও উৎসব আর আনন্দ সবার। ঈদের সময় ধর্মভেদে সবাই যেমন আনন্দ উপভোগ করে, ঠিক তেমনি পূজার ক্ষেত্রেও নিজ নিজ ধর্মকে পাশে রেখে একসঙ্গে সময় কাটায়, আনন্দের পসরা সাজায় মানুষ। আর এটি যেমন বাংলাদেশের জন্য সত্য, তেমনি সত্য পৃথিবীর অন্য সব দেশের ক্ষেত্রেও।

প্রচলন অনুযায়ী পূজা হলেও এবছর পূজাটি হবে ব্যতিক্রম। আমার কাছে এবছরের পূজাটি সম্পূর্ণ ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যে অনুষ্ঠিত হবে বলে মনে করি। কথায় বলে, হিন্দুধর্ম চলে আচারে। করোনার কারণে বারবার হাত ধোয়া, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা এগুলো হবে উপাসনার নিয়মানুবর্তিতা। তবে এবার উৎসব হবে আনন্দ হবে না এমনটাই অভিমত অনেকের। স্মরণকালের প্রথম এমন পূজায় হয়ত আমরা অনেকেই হতবাক ও বিচলিত। এবারের পূজা উদযাপন পরিষদের ২৬ দফার যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে, মন্দিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে, ভক্ত-পূজারি ও দর্শনার্থীদের জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রেখে, মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে, নারী-পুরুষের যাতায়াতের আলাদা ব্যবস্থা করে, বেশি সংখ্যক নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক নারী-পুরুষ রেখে, ভক্তিমূলক সংগীত ছাড়া অন্য কোন গান না বাজিয়ে, সব ধরনের আলোকসজ্জা, সাজসজ্জা, মেলা, আরতি প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিহার করে, প্রতিমা নিরঞ্জনে শোভাযাত্রা পরিহার করে ইত্যাদি ইত্যাদি। বছরের একটি বার তবুও এমন বাধা-নিষেধে হয়ত অনেকে বিচলিত। কিন্তু ভাবতে হবে প্রকৃতির ওপর কারও হাত নেই। একটু সচেতনতা বাঁচিয়ে দিতে পারে বড় ভয়াবহতা। আমরা দেখেছি ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা কীভাবে পালিত হয়েছে? তাই আনন্দ কম হোক, তবুও দেশ ও বিশ্ব থেকে করোনা নামক অশুভ বিদায় হোক। মায়ের মহিমান্বিতরূপে জগতে আসুক শান্তির ছায়া। প্রাণে ফিরে পাক নির্মল আনন্দ। নির্মল পৃথিবী ও বিশুদ্ধ বাতাসের সঙ্গে সবার মাঝে আবারও পূর্বের ভ্রাতৃত্ববোধ জাগ্রত হোক। সবাই মিলে বাজাই প্রাণের সানাই, শারদীয় শুভেচ্ছা সবাইকে জানাই।

[লেখক : সাংবাদিক ও কলামিস্ট]

gopalodikari1213@gmail.com

জনসাধারণ যাবে কোথায়?

এতদিন আমরা এনজিও ও এমএলএম কোম্পানির বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ করে উধাও হওয়ার সংবাদ শুনে এসেছি।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য, ক্রিকেটার সাকিব, অতঃপর

শিরোনামটির শেষে লিখেছি ‘অতঃপর’। অর্থাৎ শেষ কোথায়? অতঃপরকে ইচ্ছে করেই প্রশ্নবোধক চিহ্নের বৃত্তে আনিনি।

মুনীর, তুই এইটা কী করলি?

আমার এ লেখাটি একজন সূদীর্ঘকালীন বন্ধুত্বের নানামুখী অভিজ্ঞতাপ্রসূত।

দেশের অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে?

সরকারি-বেসরকারি খাতে দুর্নীতি আর অর্থপাচার দেশের গোটা অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

আমি হারালাম আমার ভরসার জায়গাটি

image

চির অম্লান থাকবে মুনীরুজ্জামানের স্মৃতি

image

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য এবং মৌলবাদীদের আস্ফালন

ভাস্কর্যের বিষয়ে পবিত্র কোরআন-হাদিসে দিকনির্দেশনা রয়েছে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা নবী-রাসূলদের ঘটনার বিষয়ে একটি নীতিগত শিক্ষা দিয়ে বলেছেন, নিশ্চয় তাদের (নবী-রাসূলদের) ঘটনাবলির মাঝে জ্ঞানীদের জন্য শিক্ষণীয় বিষয় রয়েছে (সুরা ইউসুফ, আয়াত : ১১১)।

অতৃপ্তি রেখে গেলেন মুনীরুজ্জামান ভাই

image

মুনীরুজ্জমান : অসাম্প্রদায়িক চেতনার প্রতিভূ

দেশের প্রাচীন এবং ঐতিহ্যবাহী দৈনিক পত্রিকা সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খন্দকার মুনীরুজ্জামান ৭২ বছর বয়সে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।

দেশ ও জাতির স্বার্থে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময়সীমা বাড়াতে হবে

দেশ ও জাতির স্বর্থে আয়কর চলতি (২০২০-২১) করবর্ষে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময়সীমা বাড়াতে হবে।

শেয়ারবাজার স্থিতিশীলতায় বিনিয়োগ আচরণের ভূমিকা

করোনাভাইরাসের বয়স প্রায় এক বছর হতে চলল, এর বিস্তার কবে থামবে তা এখনও কেউ হলফ করে বলতে পারে না।

দেশটা কি মগের মুল্লুক

বিদেশে টাকা পাচার হচ্ছে এ কথাটি বহু বছর ধরে শুনছি। আমাদের দেশের মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা যে বিদেশে পাচার হচ্ছে তা আদালতে প্রমাণও হয়েছে।

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা। সংক্ষেপে আরপি সাহা। একজন সংগ্রামী, আত্মপ্রত্যয়ী মানবসেবক।

করোনাকালীন শহীদ মিলন দিবস পালন

image

ম্রো পল্লী এবং পাঁচতারা হোটেল

আমাদের সবার ভেতরেই প্রকৃতির জন্য এক ধরনের ভালোবাসা আছে। আমরা সবাই মনে মনে স্বপ্ন দেখি আমরা কোন একদিন একটা গহীন গ্রামে ফিরে যাব।

তিতুমীর : ব্রিটিশবিরোধী প্রথম বাঙালি শহীদ

image

লবণাক্ত ও খরাপ্রবণ অঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি ডাল চাষে সাফল্য

বাংলাদেশের মোট স্থলভাগের প্রায় এক-তৃতীয়াংশই উপকূলীয়; যার আয়তন প্রায় ৮৭ হাজার ২১১ বর্গকিলোমিটার এবং এ উপকূলীয় অঞ্চলের প্রায় ৫৩ শতাংশই লবণাক্ত।

আর্মেনিয়া-আজারবাইজানের যুদ্ধ

নাগোর্নো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের পুরাতন দ্বন্দ্বই গত সেপ্টেম্বরের যুদ্ধে পর্যবসিত হয়।

সাদা মনের মানুষ আলী জাহাঙ্গীর

সবকালে সব সমাজে কিছু ভালো মানুষ থাকেন যারা নামে-দামে খুব বিখ্যাত কেউ নন কিন্তু গুণে-মানে নীরবে-নিভৃতে সমাজের আলোকশিখা হয়ে দীপ্যমান থাকেন।

সাদা মনের মানুষ আলী জাহাঙ্গীর

সবকালে সব সমাজে কিছু ভালো মানুষ থাকেন যারা নামে দামে খুব বিখ্যাত

আশুরার বিলের বাঁধবিরোধী আন্দোলন

ফগা হাঁসদার কাছে বেশকিছু দিন সাঁওতালি বনবিদ্যা শিখতে গিয়েছিলাম।

আইনের গ্যাঁড়াকলে তিন দশক শ্রমিকের পাওনাদি

এ আর হাওলাদার জুট মিল মাদারীপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। এই মিলে প্রায় ১৪০০ শ্রমিক কাজ করতেন। এই মিলকে ঘিরে মাদারীপুর শহর তখন জমজমাট ছিল।

মার্কিন নির্বাচন : গণতন্ত্রেরই জয় হবে

image

আবুল হাসনাত : একজন নিভৃতচারীর গল্প

image

গণতন্ত্র ও বহুত্ববাদের আদর্শ অটুট থাক

image

কোথায় আকবরের ক্ষমতা

image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন

image

বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার কীভাবে মানবকল্যাণে অবদান রাখবে

image

মুরাদনগরই আসল বাংলাদেশ?

জন্মেছি ১৯৩৩ সালে। দেখেছি ইংরেজ শাসিত ভারত। অতঃপর ২৩ বছর ধরে দেখলাম অনাকাক্সিক্ষত দেশ পাকিস্তানকে।

আনিসুল করিমের মৃত্যু : মানসিক চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় করুণ দশার প্রতিফলন

image

আর কত কাল?

খবরের শিরোনামটি দেখে আমি শিউরে উঠেছিলাম-একজন মানুষকে পুড়িয়ে মারা হয়েছে।

চিরকাল বেঁচে থাকবেন মানুষের হৃদয়ে

image

নদীমাতৃক বাংলাদেশের অস্তিত্ব রক্ষায় নদী রক্ষার বিকল্প নেই

নদীমাতৃক বাংলাদেশের বেশিরভাগ নদীর অবস্থা ভালো নেই। অস্তিত্বহীন হয়ে পড়ছে অনেক নদী।

রোহিঙ্গা শরণার্থী দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তির জন্য হুমকিস্বরূপ

image

প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ের ৫০ বছর

ভয়াল ১২ নভেম্বর উপকূল জীবন ইতিহাসের এক ভয়াবহ কালরাত। ১৯৭০ সালের এ দিনে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে ১০ লাখ মানুষের প্রাণহানি ঘটে।

বেতিয়ারা রণাঙ্গনে শহীদ কাইউম

image

বেতিয়ারা যুদ্ধ

image

করুণাময়ী সরদার ও মানিক সাহার প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য

image

ধর্ম রক্ষার নামে এ অধর্মাচার কী বার্তা দিচ্ছে?

লালমনিরহাটে এক যুবককে একদল উন্মত্ত জনতা কুরআন অবমাননার গুজবের রেশ ধরে পিটিয়ে হত্যা করে এবং পরে মৃতদেহ পড়িয়ে ফেলে।

পিয়াজ সংকটের স্থায়ী সমাধানের জন্য করণীয়

image

বঙ্গবন্ধু, জ্বালানি নিরাপত্তা ও বর্তমান বাংলাদেশ

মানব সভ্যতার অস্তিত্ব নির্ভর করে জ্বালানি শক্তির ওপর। দেশের জন্য বর্তমানে জ্বালানি

গণমুখী সমবায়ের স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু

বাংলাদেশে সমবায়ের ইতিহাস পর্যালোচনা করে দেখা গেছে- দেশে গণমুখী সমবায়ের সূত্রপাত করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ প্রসঙ্গে

বাঙালির হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ অর্জন ’৭১-এ মুক্তিযুদ্ধ। এই বাংলার স্বাধীনচেতা মানুষ দীর্ঘকাল ধরে অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে বহু লড়াই-সংগ্রাম করেছে।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকীকরণ

বর্জ্যরে আধুনিক ও নিরাপদ অপসারণ ব্যবস্থার অপ্রতুলতা বাংলাদেশের অন্যতম পরিবেশগত সমস্যা।

অসহায় বিশ্ববাসী করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের দিকে তাকিয়ে আছে

ক্ষুদ্র অণুজীব করোনার ভয়ে বিশ্ববাসী আতঙ্কে ঘরবন্দি জীবনযাপন করছে বিগত প্রায় আট মাস যাবৎ।

৩ নভেম্বরের করুণ অভিজ্ঞতা ও শিক্ষা

সালটা ১৯৭৫। বাঙালি জাতির এক-এক করে হারানোর এবং শোকের বছর।

করোনাকালের লেখাপড়া ও শিক্ষার্থীদের মানসিক অবস্থা

চলছে করোনাকাল। করোনা ভাইরাল ডিজিজ যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথমে চীনে শনাক্ত হওয়ার কারণে এটি কোভিড-১৯ হিসেবে সারা বিশ্বে পরিচিতি লাভ করেছে।

অনলাইন ক্লাস

বহমান এ নিবন্ধে আমরা এর আগে চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ক্লাস বিষয়ক একটি জরিপের মাধ্যমে অনেক তথ্য-উপাত্ত পেয়েছি।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে করণীয়

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শীতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির সতর্ক বার্তা সময়মতো দিয়েছেন।

কে যাবেন হোয়াইট হাউজে

image

ঘৃণা ঘৃণার জন্ম দেয়

মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর পড়াতে গিয়ে উদাহরণ হিসেবে ক্লাসে শিক্ষার্থীদের হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর একটি কার্টুন প্রদর্শন করেন ফরাসি শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি।

জয়তু জননেতা আজিজুর রহমান

image

“পরশ্রীপুলক”

না-বাংলা ভাষায় “পরশ্রীপুলক” বলে কোন শব্দ নেই। তবে আমার খুব শখ “পরশ্রীকাতর” এর বিপরীত শব্দ হিসেবে বাংলা ডিকশনারিতে “পরশ্রীপুলক” বা এ ধরনের কোন একটা শব্দ যেন জায়গা করে নেয়! বঙ্গবন্ধু তার অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে পরশ্রীকাতর শব্দটি নিয়ে অনেক দুঃখ করেছেন। লিখেছেন, “পরের শ্রী দেখে যে কাতর হয় তাকে ‘পরশ্রীকাতর’ বলে।

মিথ্যা মামলা, বিচারক এবং তারপর

গত ২২ অক্টোবর ‘আমাদের নতুন সময়ের’ মফস্বল পাতায় একটি ছোট্ট অথচ গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যতিক্রমী সংবাদ প্রকাশ হয়েছে।

জাতীয় স্বাস্থ্যনীতি ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থা এবং কতিপয় সুপারিশ

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি যুদ্ধ বিধ্বস্ত স্বাধীন দেশ গড়ার পাশাপাশি দেশের মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির নোবেল জয় ও খাদ্য নিরাপত্তা

এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেল জাতিসংঘের ‘বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লুএফপি)’।

অনলাইন ক্লাস

করোনার সংক্রমণের প্রতিক্রিয়ায় সারা বিশ্বের মতো আমরাও আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করছি।

নির্বাচনকে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে

করোনা মহামারীর মধ্যেই ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার জেলা-উপজেলা পরিষদের দুই শতাধিক নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল

শিশুশিক্ষার সাতকাহন

পৃথিবীতে এখনও প্রতিনিয়ত তান্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে সারা বিশ্বে আজ মহামারী দেখা দিয়েছে।

ঐক্যের শিক্ষায় শ্রীশ্রী দুর্গাপূজা

image

দুর্গাপূজার ইতিকথা ও বাংলায় দুর্গোৎসবের প্রচলন

ঢাকে কাঠি পড়বে, বাজবে শঙ্খ, মন্ডপ মন্ডপে ধুপের সুগন্ধি, ভক্তকুলের আরাধনা আর ধনুচি নাচে মেতে উঠবে সব সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। দুর্গাপূজা বলে কথা।

দুর্গাপূজার ইতিকথা ও বাংলায় দুর্গোৎসবের প্রচলন

ঢাকে কাঠি পড়বে, বাজবে শঙ্খ, মন্ডপ মন্ডপে ধুপের সুগন্ধি, ভক্তকুলের আরাধনা আর ধনুচি নাচে মেতে উঠবে সব সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। দুর্গাপূজা বলে কথা। ষষ্ঠী থেকে দশমী চলবে দেবী বন্দনা।

আল্লাহর দুনিয়ায় জমির অভাব নেই

সুপ্রিমকোর্টের রায়ের ভিত্তিতে ভারতের অযোধ্যায় ৫০০ বছরের পুরনো বাবরি মসজিদের জায়গায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্প্রতি রামমন্দির নির্মাণের সূচনা করেছেন।

করোনাকালে সামাজিক দূরত্ব

আজ থেকে ২৫/৩০ বছর আগের কথা। শহরের অনেকের প্রিয় শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তি, বাড়ির দ্বিতীয় তলায় থাকতেন।

প্রয়োজন নির্মল বায়ু

মানুষ, উদ্ভিদ এবং জীবজন্ত সবকিছুর বেঁচে থাকার জন্য সুস্থ পরিবেশ প্রয়োজন।

একাত্তরের বিভীষিকা এবং করোনা

করোনা তার ভয়ঙ্কর চেহারা নিয়ে তার আগমনীর অষ্টম মাস পার করছে।

নিরাপদ সড়ক : প্রয়োজন আইনের প্রয়োগ ও সচেতনতা

নিরাপদ সড়কের প্রত্যাশা সড়ক ব্যবহারকারী তথা জনগণের দীর্ঘদিনের। এ প্রত্যাশা পূরণে সরকারি-বেসরকারি নানা উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে।

পোশাক কিংবা জৈবিক তাড়না নয় ত্রিমাত্রিক ক্ষমতাই ধর্ষণের মূল

ধর্ষণ ঘটনাটি ইদানীং একটি কাঠামোর মধ্য দিয়ে পরিলক্ষিত হয়।

টেকসই বন্যা ব্যবস্থাপনা : বঙ্গবন্ধু থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ। ভৌগলিক অবস্থান, দেশের ভূমিবৃত্তি ও আবহাওয়ার কারণে বাংলাদেশে প্রতিবছরই ছোট বড় বন্যায় আক্রান্ত হয়।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ প্রসঙ্গে

বাঙালির হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ অর্জন ’৭১-এ মুক্তিযুদ্ধ। এই বাংলার স্বাধীনচেতা মানুষ দীর্ঘকাল ধরে অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে বহু লড়াই-সংগ্রাম করেছে।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকীকরণ

বর্জ্যরে আধুনিক ও নিরাপদ অপসারণ ব্যবস্থার অপ্রতুলতা বাংলাদেশের অন্যতম পরিবেশগত সমস্যা।

অসহায় বিশ্ববাসী করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের দিকে তাকিয়ে আছে

ক্ষুদ্র অণুজীব করোনার ভয়ে বিশ্ববাসী আতঙ্কে ঘরবন্দি জীবনযাপন করছে বিগত প্রায় আট মাস যাবৎ।

৩ নভেম্বরের করুণ অভিজ্ঞতা ও শিক্ষা

সালটা ১৯৭৫। বাঙালি জাতির এক-এক করে হারানোর এবং শোকের বছর।

করোনাকালের লেখাপড়া ও শিক্ষার্থীদের মানসিক অবস্থা

চলছে করোনাকাল। করোনা ভাইরাল ডিজিজ যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথমে চীনে শনাক্ত হওয়ার কারণে এটি কোভিড-১৯ হিসেবে সারা বিশ্বে পরিচিতি লাভ করেছে।

অনলাইন ক্লাস

বহমান এ নিবন্ধে আমরা এর আগে চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ক্লাস বিষয়ক একটি জরিপের মাধ্যমে অনেক তথ্য-উপাত্ত পেয়েছি।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে করণীয়

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শীতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির সতর্ক বার্তা সময়মতো দিয়েছেন।

কে যাবেন হোয়াইট হাউজে

image

ঘৃণা ঘৃণার জন্ম দেয়

মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর পড়াতে গিয়ে উদাহরণ হিসেবে ক্লাসে শিক্ষার্থীদের হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর একটি কার্টুন প্রদর্শন করেন ফরাসি শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি।

জয়তু জননেতা আজিজুর রহমান

image

“পরশ্রীপুলক”

না-বাংলা ভাষায় “পরশ্রীপুলক” বলে কোন শব্দ নেই। তবে আমার খুব শখ “পরশ্রীকাতর” এর বিপরীত শব্দ হিসেবে বাংলা ডিকশনারিতে “পরশ্রীপুলক” বা এ ধরনের কোন একটা শব্দ যেন জায়গা করে নেয়! বঙ্গবন্ধু তার অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে পরশ্রীকাতর শব্দটি নিয়ে অনেক দুঃখ করেছেন। লিখেছেন, “পরের শ্রী দেখে যে কাতর হয় তাকে ‘পরশ্রীকাতর’ বলে।

মিথ্যা মামলা, বিচারক এবং তারপর

গত ২২ অক্টোবর ‘আমাদের নতুন সময়ের’ মফস্বল পাতায় একটি ছোট্ট অথচ গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যতিক্রমী সংবাদ প্রকাশ হয়েছে।

জাতীয় স্বাস্থ্যনীতি ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থা এবং কতিপয় সুপারিশ

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি যুদ্ধ বিধ্বস্ত স্বাধীন দেশ গড়ার পাশাপাশি দেশের মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির নোবেল জয় ও খাদ্য নিরাপত্তা

এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেল জাতিসংঘের ‘বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লুএফপি)’।

অনলাইন ক্লাস

করোনার সংক্রমণের প্রতিক্রিয়ায় সারা বিশ্বের মতো আমরাও আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করছি।

নির্বাচনকে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে

করোনা মহামারীর মধ্যেই ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার জেলা-উপজেলা পরিষদের দুই শতাধিক নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল

শিশুশিক্ষার সাতকাহন

পৃথিবীতে এখনও প্রতিনিয়ত তান্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে সারা বিশ্বে আজ মহামারী দেখা দিয়েছে।

ঐক্যের শিক্ষায় শ্রীশ্রী দুর্গাপূজা

image

দুর্গাপূজার ইতিকথা ও বাংলায় দুর্গোৎসবের প্রচলন

ঢাকে কাঠি পড়বে, বাজবে শঙ্খ, মন্ডপ মন্ডপে ধুপের সুগন্ধি, ভক্তকুলের আরাধনা আর ধনুচি নাচে মেতে উঠবে সব সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। দুর্গাপূজা বলে কথা।

দুর্গাপূজার ইতিকথা ও বাংলায় দুর্গোৎসবের প্রচলন

ঢাকে কাঠি পড়বে, বাজবে শঙ্খ, মন্ডপ মন্ডপে ধুপের সুগন্ধি, ভক্তকুলের আরাধনা আর ধনুচি নাচে মেতে উঠবে সব সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। দুর্গাপূজা বলে কথা। ষষ্ঠী থেকে দশমী চলবে দেবী বন্দনা।

প্রাণ বাঁচাতে ওজোনস্তর রক্ষা

পৃথিবীর প্রাণ ও পরিবেশের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ওজোনস্তর।

করোনাকালীন অর্থনীতিতে সাফল্য বাংলাদেশের ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত

বৈশ্বিক মহামারী করোনায় দেশের সামগ্রিক কাঠামোতে আঘাত হেনেছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, সমগ্র বিশ্বের দেশে দেশে করোনার এই অভিঘাত আঘাত হেনেছে মারাত্মকভাবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কি বেশি সক্রিয় হয়ে উঠছে?

সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে চা চুমুক দিতে দিতে আমরা সাধারণত যে কাজটি করি তা হলো সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ বুলানো।

যে কথাগুলো হারিয়েই গেল স্মৃতি থেকে

আমরা যেন এক ধরনের গতানুগতিকতায় অভ্যন্ত হয়ে পড়ছি।

করোনার কারণে লেখাপড়ার ক্ষতি মেনে নিতে হবে- গোঁজামিলের রাস্তা নেই

এ বছর যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠার আর খুলছে না তা ভালোই আন্দাজ করা যাচ্ছে। এখন অক্টোবর মাস।

বাঙালির ভাষা রাষ্ট্রের পিতা একুশে ও বঙ্গবন্ধুর অনশন

সরকারের গোয়েন্দা সংস্থা নিয়মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের রাজনৈতিক কার্যকলাপ সম্পর্কিত তথ্য ও বিবরণী তৈরি করে সরকারের

ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই

ধর্ষণ যেন থামছেই না। প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে

সংকট মোকাবিলায় শিক্ষক সমাজ

আজ ৫ অক্টোবর। মহান বিশ্ব শিক্ষক দিবস।

বাংলাদেশে ভুট্টা উৎপাদনে নীরব বিপ্লব

ধান, সবজি ও মাছের মতো বাংলাদেশে ভুট্টা উৎপাদনে ঘটেছে এক নীরব বিপ্লব।

ধর্ষণের বর্বরতা

মুরারি চাঁদ বা এমসি কলেজের ফটকের সামনে নবদম্পতি বেড়াতে যায়, সেখান থেকে জোর করে তুলে নিয়ে কয়েকজন দুর্বৃত্ত স্ত্রীকে ধর্ষণ করে।

বাবরি মসজিদ ধ্বংসের এই রায় অপ্রত্যাশিত ছিল না

ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ ধ্বংস সক্রান্ত রায়ে এইভাবে যে অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস দেওয়া হবে, কার্যকারণ, সেদিকে গেলেও, এমনটাই যে হবে, শেষপর্যন্ত তা বিশ্বাস করা যাচ্ছিল না।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিতর্ক একটি বাস্তব সমীক্ষা

image

জমি-জমা নিয়ে বিরোধ হলে কী করবেন?

জমি-জমা নিয়ে বিরোধ হলে কী করবেন, কোথায় যাবেন, কীভাবে সমাধান করবেন, কোন আদালতে যাবেন, কোন ধরনের মামলা করবেন, কতদিন সময় লাগবে এসব নিয়েই আজকের আলোচনা।

চার কোটি বাঙালি- মানুষ একজন

আমাদের ছেলেবেলায় আমরা রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, বিদ্যাসাগর কিংবা মহাত্মা গান্ধীর মতো মানুষদের সঙ্গে নিয়ে বড় হয়েছি।

সেপ্টেম্বর একাত্তর যশোর রোড টোয়েন্টি টোয়েন্টি বাংলাদেশ

একাত্তরের সেপ্টেম্বর এলেনস গিন্সবার্গ প্রত্যক্ষ করেন পাকিস্তানি সেনাদের আক্রমণের মুখে প্রাণ বাঁচাতে যশোর রোড দিয়ে বাংলাদেশের হাজার হাজার মানুষের ভারত অভিমুখী স্রোত।

মানবাধিকার ও গণতন্ত্র একে অন্যের পরিপূরক

মানবাধিকার একটি ধারণা যা উপলব্ধির বিষয়।

অবহেলা নয়, প্রবীণদের সময় কাটুক আনন্দ-উচ্ছ্বাসে

জাতিসংঘের আহ্বানে ১৯৯১ সাল থেকে প্রতি বছর আজ ১ অক্টোবর বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব দেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় গুরুত্বের সঙ্গে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত হয়ে আসছে।

‘বাবু খাইছো’: এ কোন সংস্কৃতি?

ইউটিউব বিডির ট্রেন্ডিংয়ে সেরার তালিকায় উঠে আসা ‘বাবু খাইছো’ শিরোনামের নাটক ও গান বাংলা ভাষার বিপণœতার কথা আবারও

অর্ধ শতাব্দীতেও এ দেশে লুটপাট বন্ধ হলো না

image

হিন্দু বাড়িতে হামলা : জনগণের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারের

ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রতিশ্রুতির ওপর ভিত্তি করেই রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের জন্ম। স্বাধীনতার পর সেভাবেই রচিত হয়েছে সংবিধান